কোভিড-১৯ মোকাবেলায় যেসব সতর্কতা নিয়েছে ডিএসই

0
163
DSE

দুই মাসেরও বেশি সময় পর ফের লেনদেন শুরু হচ্ছে দেশের পুঁজিবাজারে। নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির কারণে গত ২৭ মার্চ থেকে বাজারে লেনদেন বন্ধ ছিল।

আজ বৃহস্পতিবার (২৮ মে) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সম্মতি পাওয়ায় আগামি ৩১ মে, রোববার লেনদেন চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড৷


অর্থসূচকে প্রকাশিত পুঁজিবাজার ও অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো পাওয়া যাচ্ছে আমাদের ফেসবুক

গ্রুপ Sharebazaar-News & Analysis এ। গ্রুপে যোগ দিয়ে সহজেই থাকতে পারেন আপডেট।


স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন এমন সময় শুরু হতে যাচ্ছে, যখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ চূড়ান্ত পর্যায়ের দিকে যাচ্ছে। তাই বিনিয়োগকারী এবং স্টক এক্সচেঞ্জ ও ব্রোকারহাউজের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সুরক্ষায় বেশ কিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে ডিএসই।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, ডিএসই বিল্ডিং এবং ডিএসই এনেক্স বিল্ডিং এর প্রবেশের সময় সরকারে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের স্বাস্থ্যবিধি মেন ট্রেকহোল্ডার এবং ট্রেকহোল্ডার কোম্পানির সকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও বিনিয়োগকারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় যেমন-হ্যান্ড স্যানিটাইজার, থার্মাল স্ক্যানার এবং অন্যান্যের মাধ্যমে প্রত্যেক বিনিয়োগকারীদের ব্রোকারেজ হাউজে প্রবেশের ব্যবস্থা করেছে৷DSE

ইতিমধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে সকল ব্রোকারেজ হাউজকে কোভিড-১৯ এ সতর্কতার অংশ হিসেবে হ্যান্ডশেক ও আলিঙ্গন না করা, পরিমিত দূরত্ব বজায় রাখা, কর্মকর্তা-কর্মচারী অথবা ক্লায়েন্টের হাঁচি বা কাশি বা সন্দেহজনক লক্ষণ থাকলে তাদের সনাক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া, অফিস প্রাঙ্গণে প্রবেশের জন্য প্রতিবার হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থাকরণ, ব্রোকারেজ হাউজে কর্মচারী এবং ক্লায়েন্টদের মাস্ক সরবরাহ করা, দর্শনার্থীদের অফিসে প্রবেশ করতে নিরুৎসাহিতকরণ, কর্মীদের শিফটিং অফিসের ব্যবস্থা করা এবং অফিসে মুখোমুখি বৈঠক থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়েছে।