ঢাবিতে এনএসআই কর্মকর্তাসহ তিনজনকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

0
82
dhaka university
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় লোগো

dhaka universityঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকারি গোয়েন্দা পুলিশের এনএসআই শাখার এডিসহ তিনজনকে মারধর করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। আবাসিক হলে থাকাকে কেন্দ্র করে এই মারধরের ঘটনা ঘটে।

সোমবার রাত ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলে এ ঘটনা ঘটে।

এনএসআইর ওই কর্মকর্তার নাম সায়মন হোসেন। তিনি হলের ৩১৮নম্বর রুমে থাকতেন। তার সঙ্গে বন্ধু ডা. সুমন এবং ছোট ভাই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ওমর সানিও থাকতো।

প্রত্যক্ষদশীরা জানান, প্রায় দুই বছর ধরে এনএসআইএ চাকরি করছেন সায়মন হোসেন। তিনি অনেক আগেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। হলে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের থাকার কষ্ট হওয়ায় শিক্ষার্থীরা সায়মনকে হল থেকে চলে যেতে বলে। গত তিনদিন আগে তাকে ওয়ার্নিংও দেওয়া হয়।

ওই কর্মকর্তা হল ত্যাগে অস্বীকৃতি জানালে ছাত্রলীগের কর্মীরা রুম থেকে তার জিনিসপত্র বের করে তালা লাগিয়ে দেয়। গতকাল সোমবার বিকেলে রুমে তালা দেখে ওই কর্মকর্তা হলের স্টাফদের এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করেন। স্টাফরা এ বিষয়ে কিছু বলতে না পারলে ওই কর্মকর্তা স্টাফদের মারধর করেন এবং তালা ভেঙে তার জিনিসপত্র আবার রুমে রেখে বাইরে যান।

এতে শিক্ষার্থীরা খুব ক্ষুব্ধ হয় এবং এনএসআইকে মারার পরিকল্পনা করে। পরে রাত ১টার দিকে তিনি হলে আসলে ছাত্রলীগের কর্মীরা তাকে মারধর করে। এ সময় তার সঙ্গে থাকা ছোট ভাই ও বন্ধুকেও মারধর করে তারা।

ছাত্রলীগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ওই কর্মকর্তা হলের তিন তলা থেকে লাফ দিয়ে মাটিতে পড়ে যান। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. এম আমজাদ আলী বলেন, অনেক আগেই ওই কর্মকর্তার শিক্ষাজীবন শেষ হয়েছে। এখন সে চাকরি করে। নিয়ম অনুযায়ী শিক্ষাজীবন সমাপ্ত হলে তার হলে থাকার অধিকার নেই। কিন্তু তিনি হল ত্যাগ না করে উল্টো হলের কর্মচারীকে মারধর করেছে।

এ বিষয়ে হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসানকে বার বার ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এএইচ/কেএফ