আইসিএমএবি’র নির্বাচনে যারা বিজয়ী হলেন

0
167

পেশাদার হিসাববিদদের অন্যতম প্রতিষ্ঠান দ্য ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টেন্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি) এর ১৭তম কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে ১৬টি ন্যাশনাল কাউন্সিলরের পদে ৩২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নির্বাচনে অনলাইন ও অফলাইনে ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা ছিল। গত ৪ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিটে অনলাইনে ভোট নেওয়া শুরু হয়,যা চলে ৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা পর্যন্ত। আর ৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত রাজধানীর নীলক্ষেতে অবস্থিত আইসিএমএবির প্রধান কার্যালয়ে সরাসরি ভোট নেওয়া হয়।

নির্বাচন শেষে শুক্রবার রাতেই ফলাফল প্রকাশ করে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি।

প্রাপ্ত ফলাফল অনুসারে নির্বাচনে বিজয়ীরা হচ্ছেন-বিএসএফআইসি ও রূপালী ব্যাংক এর ডিরেক্টর এ.কে.এম দেলোয়ার হোসেন এফসিএমএ (প্রাপ্ত ভোট ৮১০), লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড এর এসইভিপি এন্ড হেড অফ অপারেশন একেএম কামরুজ্জামান (৬৯৭), ন্যাশনাল বোর্ড অফ রেভিনিউ (এনবিআর) এর এডিশনাল কমিশনার কাস্টমস কাজী মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন (৬৯০), পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় প্রকৌশল বিভাগের আর্থিক ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ সেলিম (৬৭৯), ইনডেক্স গ্রুপ অফ কোম্পানিজ এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মামুনুর রশিদ এফসিএমএ (৬৭০), ওয়েস্টার্ন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর  আব্দুল আজিজ (৬৬৭), অর্থমন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের ডেপুটি সেক্রেটারি মোঃ আব্দুর রহমান খান এফসিএমএ (৬৬৬), ইউনিকম গ্রুপ এর ডিরেক্টর এন্ড সিইও আলী হায়দার চৌধুরী (৬৬১), আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড এর সিইও ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর আরিফ খান (৬৩৪), কোহিনুর কেমিক্যাল কোম্পানি লিমিটেড এর এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট এন্ড সিএফও আবু বকর সিদ্দিক (৬৩২), জসিম উদ্দিন আখন্দ (৬৩০), ইন্ডিপেন্ডেন্ট ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট আবু সাঈদ মোঃ শায়খুল ইসলাম (৬২৮), সেভেন সার্কেল বাংলাদেশ এর সিএফও মো. কাউসার আলম কাউসার আলম (৬২২), রবি আজিয়াটা লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর মাহতাব উদ্দিন আহমেদ মাহতাব উদ্দিন আহমেদ (৬১৬), এরিস্টো ফার্মা লিমিটেড এর জেনারেল ম্যানেজার মনিরুল ইসলাম (৬০৯), ইনফিনিটি গ্রুপ অফ কোম্পানিজ এন্ড কর্পোরেট সাপোর্ট লিমিটেড এর চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আলম  (৬৪৪)।

সম্প্রতি সংশোধিত আইনের কারণে এবার নির্বাচনে আনুষ্ঠানিক কোনো প্যানেল ছিল না। তবে সংশোধনীর প্রজ্ঞাপন জারী হওয়ার আগেই অনানুষ্ঠানিকভাবে দু’টি প্যানেল করে প্রার্থীরা মাঠে নেমেছিলেন। নির্বাচন পর্যন্ত এদের উপস্থিতি ছিল।