আগ্রাসী ঋণ না দেওয়ার ব্যপারে নতুন ব্যাংককে সর্তক করলেন গভর্নর

0
76
atiur-rahman-governer

atiur-rahman-governerনতুন কার্যক্রম শুরু করা নয়টি ব্যাংককে ‘আগ্রাসী ঋণ’ না দিতে সতর্ক করে দিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান। এছাড়া ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ঋণের এককসীমা অতিক্রম না করারও পরামর্শ দেন তিনি।

বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ ব্যাংক ভবনে নতুন নয়টি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সহ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সাথে বৈঠক কালে বলেন, ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সময় প্রার্থীর দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই না করেই ঋণ দেওয়া হয়। এর ফলে ওই ঋণ খেলাপি হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

তিনি এমন ধরনের পরিস্থিতি থেকে ব্যাংকিং খাতকে বাঁচাতে এককঋণ সীমা অতিক্রম না করার পরামর্শ দেন।

এদিকে বৈঠক শেষে ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, মূলত নতুনভাবে কার্যক্রম শুরুর এক বছরে তাদের অভিজ্ঞতা এবং সামনের দিনে আরও ভালো করতে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিতে এ বৈঠক হয়।

তিনি বলেন, নতুন এই ব্যাংকগুলো যাতে ঋণ বিতরন ও মানিলন্ডারিংয়ে জড়িয়ে না পড়ে সে বিষয়ে প্রথম বছর থেকেই কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। ঋণ বিতরণ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা যথাযথ পরিপালনের নির্দেশের পাশাপাশি ব্যাংকগুলো যেন আগ্রাসি ব্যাংকিং না করে সে বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

পরিচালনার ক্ষেত্রে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা ও বোর্ডের যার যা দায়িত্ব সেই অনুসারে কাজ করবে। ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে যেন পরিচালনা পর্ষদ হস্তক্ষেপ না করে সেই বিষয়েও বৈঠকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নতুন এ ব্যাংকগুলো ‘বি’ ক্যাটাগরির পৌরসভায় অবস্থিত শাখাগুলোকে গ্রামের শাখা হিসেবে বিবেচনা জন্য দাবি জানিয়েছে। এর কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ করেছে ঢাকায় অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের একটি বড় অংশ পরিচালিত হয়। তাই ‘বি’ ক্যাটাগরির শাখাকে গ্রামের শাখা হিসেবে ধরলে তারা শহরে শাখা বাড়ানোর সুযোগ পাবে।

অবশ্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বলা হয়েছে গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে হলে গ্রামে ব্যাংকের শাখা খুলতে হবে। তবে বি ক্যাটাগরির পৌরসভা সবগুলোকে নয় কিছু শাখাকে বিশেষ বিবেচনায় নেওয়া হবে কি না কেন্দ্রীয় ব্যাংক তা ভেবে দেখবে।

গত বছর ব্যাংকিং প্রবিধি নীতি বিভাগের (বিআরপিডি) জারি করা প্রজ্ঞাপন-১১ অনুযায়ী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দ্বায়িত্ব ও কর্তব্য নির্ধারিত করে দেওয়া আছে।

এস কে সুর বলেন, তাদেরকে ঋণ ঝুঁকি, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা, মানিলন্ডারিং সহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শর্তাবলী অক্ষরে অক্ষরে পরিপালনের জন্যও নির্দেশ দিয়েছেন গভর্নর।

বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ক্রেডিট রিক্স ম্যানেজমেন্ট (সিআরজি) মেনে ঋণ গ্রহীতা নির্বাচন করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান ডেপুটি গভর্নর।