ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ প্রক্রিয়ায় এখনো পিছিয়ে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
122

বিনিয়োগে উচ্চ সুদ, অর্থায়ন সমস্যা, পরিবেশবান্ধব কারখানার জন্য সার্টিফিকেট না পাওয়াসহ বিভিন্ন কারণে সামনে আগাতে পারছেনা ব্যবসায়ী পরিবেশ। এ কারণেই বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী এবছরেও ব্যবসা সহজীকরণ সূচকে কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে পৌঁছাতে পারেনি বাংলাদেশ।

আজ শনিবার রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে, ইজ অব ডুয়িং বিজনেসঃ সামনের দিকে এগুনোর পথ শীর্ষক এক সেমিনারে এমনটা জানান বক্তারা।

বক্তারা বলেন, কাষ্টমস অফিসগুলোতে অযথা হয়রানি, দক্ষ জনশক্তি, কর্মসংস্থানের অবস্থা, ব্যবসার ক্ষেত্রে  লাইসেন্সপ্রাপ্তিতে ধীর গতিসহ নানা চ্যালেঞ্জ এখনও রয়ে গেছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দীর্ঘ মেয়াদে কর্ম কৌশল হাতে নেয়া দরকার।

বিশ্ব ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী এ বছর ১৬৮ তম স্থানে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। গত বছরে ব্যবস্থা সহজীকরণ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৭৬ তম।

১৭ কোটি মানুষের এদেশে ১৫ থেকে ৩০ বছর বয়সী জনগোষ্ঠী রয়েছে ৫ কোটির মতো। প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থার কারণে বছরে ২০ লাখের ওপরে মানুষ কর্মসংস্থানের জন্য বের হয়েও কর্মসংস্থান পাচ্ছেনা। কারিগরি ও ট্রেনিং ব্যবস্থায় থাকলে এদের কাজে লাগানো সম্ভব হতো।

তারা জানান, ব্যবসা সহজীকরণে সরকারকে কলকারখানাগুলোতে উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর পথ খুঁজতে হবে। ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের অংশ হিসাবে প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার বাড়াতে হবে।

এসময়, প্রয়োজনে স্বল্পমেয়াদি, মধ্যমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ নিতে হবে। ব্যাংকঋণের উচ্চ সুদহার, দুর্নীতি, অনৈতিক লেনদেন, পরিবহন খরচসহ যেসব বিষয়ে ব্যবসায়ীদের উদ্বেগ আছে, সেগুলো নিরসনের দাবিও জানান তারা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিসিআই) এর সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, গবেষণা প্রতিষ্ঠান বিআইডিএসের নির্বাহী পরিচালক নাজনীন আহমেদসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

অর্থসূচক/ জেডএ/এমএস