হোলসিমের ৫৭ শতাংশ মুনাফা কমেছে

0
129

holcimচলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) রেকর্ড মুনাফা কমেছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সিমেন্ট কোম্পানি হোলসিমের। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, আলোচিত প্রান্তিকে তাদের ৫৭ শতাংশ মুনাফা কমেছে। হোলসিম জানিয়েছে, মাসের শুরুতে আরেক শীর্ষস্থানীয় সিমেন্ট কোম্পানি লাফার্জের সাথে একীভূত হওয়ার অনুমোদন নিয়ে ব্যস্ত থাকায় জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে তাদের মুনাফা এতো বেশি কমেছে। খবর ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের।

কোম্পানিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে তাদের মুনাফা কমে দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি সুইজ ফ্রা। অথচ গত বছরের একই সময়ে তাদের মুনাফা ছিল ১৮ কোটি ৭০ লাখ ফ্রা। এতে করে আলোচ্য প্রান্তিকে তাদের রাজস্ব আয়ও ৫ দশমিক ৩ শতাংশ কমেছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

হোলসিমের বরাত দিয়ে সোমবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৭ এপ্রিল দুই কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ একীভূত হওয়ার বিষয়টি অনুমোদন করে। এ সময় লাফার্জকে কিনতে ৫ হাজার কোটি ডলারের দরকার হয় হোলসিমের। ফলে নিজেদের কিছু শেয়ার বিক্রি করে তারা। কোম্পানিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, লাফার্জের সাথে তাদের চুক্তি সম্পন্ন হলে বিশ্বের সবচেয়ে বড নির্মাণসামগ্রী প্রস্তুতকারক কোম্পানিতে পরিণত হবে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক কোম্পানিটি। এতে করে বছরে ৪ হাজার ৩০০ কোটি ডলার যৌথভাবে আয় করতে পারবে বলেও জানায় হোলসিম।

সূত্রটি জানায়, নতুন এ কোম্পানিটি লাফার্জ-হোলসিম নামেই আত্মপ্রকাশ করবে। আর নতুন নামে কোম্পানিটি এখন থেকে বিশ্বব্যাপী তাদের নির্মাণসামগ্রী বিক্রি বাড়াতে পারবে। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে, এখনো পর্যন্ত উভয় কোম্পানিই তাদের নির্মাণসামগ্রী হস্তান্তর করেনি। তারা বলছে একটি নিয়ন্ত্রণ কাঠামোর মধ্য দিয়ে খুব শিগগিরই তাদের এই হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে।

ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত বছরে হোলসিম অস্ট্রেলিয়ার সিমেন্ট বাজারে তাদের ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করে। এ সময় তাদের আয় দাঁড়ায় ১৪ কোটি ৬০লাখ সুইজ ফ্রা বা ১৬ কোটি ৫৫ লাখ ডলার। এদিকে ইউরোপে তাদের বিক্রি বেড়ে যায়। ফলে এ সময়ে তারা নিজেদের কোম্পানির উন্নতি ধরে রাখতে লাফার্জ কেনার পরিকল্পনার উদ্যোগ নেয়। আর সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী চলতি মাসের শুরুর দিকে ফ্রান্সের সিমেন্ট কোম্পানির লাফার্জের সাথে একীভূত হয়ে যায় তারা।

এ সময় উভয় কোম্পানি জানায়, নতুন এই চুক্তি বাস্তবায়ন হলে তারা এক হয়ে ফ্রান্স, ফিলিপাইন ও সার্বিয়াতে তাদের সিমেন্ট বিক্রি বাড়াবে।

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের প্যারিস ভিত্তিক লাফার্জ বিশ্বের সর্বাধিক সিমেন্ট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৬৪টি দেশে লাফার্জের কার্যক্রম রয়েছে। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটি লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট  নামে বাংলাদেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত। অন্যদিকে, সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক হোলসিম বিশ্বের অন্যতম নির্মাণসামগ্রী উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। বিশ্বের প্রায় ৭০টি দেশে এই প্রতিষ্ঠানের বাণিজ্যিক কার্যক্রম রয়েছে, যার মধ্যে বাংলাদেশও অন্তর্ভুক্ত।

এস রহমান/