৫ জানুয়ারির আগেই সরকারের পতন: হাফিজ উদ্দিন
রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজনীতি

৫ জানুয়ারির আগেই সরকারের পতন: হাফিজ উদ্দিন

hafizদেশব্যাপী অদম্য প্রতিরোধ গড়ে তোলে ৫ জানুয়ারির আগেই বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের পতন নিশ্চিত করা হবে বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

সোমবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি আয়োজিত ‘মহান বিজয় দিবস’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

হাফিজ বলেন, আগামি জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দেশ ছেড়ে পালাবে। কারণ আওয়ামী লীগ সরকার দুর্নীতির পাহাড় গড়েছে। এই কারণে তারা সর্বদলীয় সরকারের নামে নিজেদের অধীনে নির্বাচন করে ক্ষমতায় টিকে থাকার পাঁয়তারা করছে। যেন জনরোষের আক্রমণ থেকে অন্তত নিজেদের রক্ষা করতে পারে।

আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে নিজেদের বলে দাবি করেন। সেই আওয়ামী লীগের হাতে গণতন্ত্র আজ বিপন্ন উল্লেখ করে তিনি বলেন,  সরকারি-বেসরকারি প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে তারা গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে। দেশে-বিদেশে সমালোচিত হচ্ছে। তবুও তারা একতরফা সংঘাতময় নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এর পরিণাম কখনই শুভ হবে না।

তিনি বলেন, এ অগণতান্ত্রিক সরকার বাংলাদেশের মানুষের বুকের উপর জগদ্দল পাথরের মত চেপে বসেছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন রেখে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জমান দুদু বলেন, ৪৩তম বিজয় দিবসে আমরা পা দিয়েছি। কিন্তু আমরা যদি আপনাকে জিজ্ঞাসা করি কিসের বিজয়, কার বিজয়। আপনি কি এর জবাব দিতে পারবেন। যে দেশে বিরোধী দলীয় নেত্রীর বাসা কেড়ে নেওয়া হয়, বিরোধী  দলীয় নেতাকর্মীদের অফিসে যেতে দেওয়া হয় না, সে দেশের কি কোনো বিজয় থাকতে পারে?

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, আপনি নিজে আইন ও গণতন্ত্র মানেন না। সেখানে জনগণও আপনাকে মানবে না। আমরাও আপনাকে মানি না, মানবো না। আপনার পতন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। খুন, গুম, হত্যা ও নির্যাতন চালিয়ে আপনি ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবেন না। অতীতেও কেউ টিকতে পারে নি।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল অলি আহমেদ, মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা,  বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

জেইউ/এএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ