২০১৯ সালে শেখ হাসিনার অধীনে আবার নির্বাচন হবে: নাসিম

0
86
nasim

nasim২০১৯ সালে শেখ হাসিনার অধীনে আবার নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। এ সময় তিনি খুনি এরশাদ শিকদারের বিচার যেমন খুলনার মাটিতে হয়েছে একইভাবে বিএনপি-জামায়াতের বিচারও দেশের মাটিতেই হবে বলে মন্তব্য করেন।

শনিবার সন্ধ্যায় খুলনার ডাকবাংলো চত্বরে অনুষ্ঠিত ১৪ দলের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। ইতিহাস বিকৃতকারীসহ দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও যুদ্ধাপরাধীদের দ্রুত বিচারের দাবিতে খুলনা মহানগর ও জেলা ১৪ দল এই জনসভার আয়োজন করে।

নাসিম বলেন, খালেদা জিয়া তাদের দোসর জামায়াতকে নিয়ে হুমকি দিয়েছিল ৫ জানুয়ারির নির্বাচন হবে না। কিন্তু আমরা শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন করে প্রমাণ করেছি বিএনপি-জামায়াতের কথায় দেশ চলবে না। এ সময় জনসভায় বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে দেওয়া তারেক রহমানের বক্তব্যের তীব্র সমালোচনাও করেন তিনি।

জনসভায় ১৪ দলের নেতারা বলেন, জিয়াউর রহমান যুদ্ধাপরাধীদেরকে পুনর্বাসন করেছিলেন। তার স্ত্রী যুদ্ধাপরাধীদের গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়েছেন। এখন তার ছেলে দেশের স্থপতিকে নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বিএনপি-জামায়াত দেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না বলেই নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। দেশবাসীকে সাথে নিয়ে এই ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি তালুকদার আবদুল খালেক এমপির সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক-সম্পাদক মোজাম্মেল হক এমপি, বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, এস এম কামাল হোসেন, জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরিন আক্তার এমপি, ন্যাপের সাধারণ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট এনামুল হক, গণতান্ত্রিক পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহমুদুর রহমান বাবু, জেপি মহাসচিব শেখ শহিদুল ইসলাম, জাসদ নেতা রেজাউল রশীদ।

এছাড়া খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ, সাধারণ-সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি, মহানগর সাধারণ-সম্পাদক মিজানুর রহমান এমপিসহ স্থানীয় নেতারা জনসভায় বক্তৃতা করেন।