স্কুল শিক্ষার্থীদের সঞ্চয় দেড় হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
140
প্রতীকী ছবি

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৮ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের ব্যাংক সঞ্চয় বেড়েছে। পাশাপাশি হিসাবের (একাউন্ট) সংখ্যাও বেড়েছে আগের বছরের তুলনায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী চলতি বছরের (২০১৯) জুন শেষে শিক্ষার্থীদের একাউন্টে ১ হাজার ৪৯৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা জমা হয়েছে।

প্রতীকী ছবি

অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে তাদেরকে দেশের আর্থিক সেবার আওতায় নিয়ে আসা হলো স্কুল ব্যাংকিংয়ের লক্ষ্য। শিক্ষার্থীদের ব্যাংকিং সেবা ও আধুনিক ব্যাংকিং প্রযুক্তির সাথে পরিচিত করার পাশাপাশি সঞ্চয়ের অভ্যাস গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে ২০১০ সালে এ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের জুন শেষে শিক্ষার্থীদের ব্যাংক হিসাব সংখ্যা ছিল ১৫ লাখ ৩৯ হাজার ৮৩৬টি। একই সময়ে মোট স্থিতি বা জমার পরিমান ছিল ১ হাজার ৪১৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। তবে চলতি বছরের (২০১৯) জুন শেষে মোট হিসাব সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৯৬ হাজার ৩টি। অন্যদিকে এসব হিসাবে মোট স্থিতি বা জমার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৯৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা। সুতরাং, বিগত এক বছরে স্কুল ব্যাংকিং হিসাব সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ৪ লাখ ৫৬ হাজার ১৯৪টি এবং এসব হিসাবে স্থিতির পরিমান বেড়েছে ৭৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায় বিগত এক বছরে হিসাব সংখ্যার প্রবৃদ্ধি ২৯.৬২ শতাংশ এবং স্থিতির প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৫.২৫ শতাংশ।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, হিসাব সংখ্যা ও স্থিতির দিক থেকে বেসরকারি ব্যাংকের অবদান সবচেয়ে বেশী। বেসরকারি ব্যাংকসমূহ মোট ১৩ লাখ ৮৭ হাজার ৭২৫টি ব্যাংক হিসাব খুলেছে শিক্ষার্থীরা। যা মোট স্কুল ব্যাংকিং হিসাবের ৬৯.৫২ শাতংশ। এসব হিসাবের বিপরীতে জমা হয়েছে ১ হাজার ২৩৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। যা স্কুল ব্যাংকিং হিসাবের মোট স্থিতির ৮২.৮৩ শতাংশ।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ ২৩.৭৬ শতাংশ স্কুল ব্যাংকিং হিসাব খুললেও মোট স্থিতির ১৩.২৮ শতাংশ আমানত সংগ্রহ করেছে তারা। মোট হিসাবের ৩৮.৬৩ শতাংশ গ্রামাঞ্চলে এবং ৬১.৩৭ শতাংশ শহরাঞ্চলে খোলা হয়েছে। গ্রামাঞ্চল ও শহরাঞ্চলে স্থিতির পরিমাণ মোট স্থিতির যথাক্রমে ২৫.৭৩ এবং ৭৪.২৭ শতাংশ।

স্কুল ব্যাংকিং কর্মসূচির আওতায় খোলা মোট হিসাবে ছাত্র ও ছাত্রীর অনুপাত ৫৭:৪৩। একক ব্যাংক হিসেবে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড সর্বোচ্চ সংখ্যক হিসাব খুলেছে। যা মোট হিসাবের ১৮.৫২ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে শেষে ইসলামী ব্যাংকে ৩ লাখ ৬৯ হাজার ৬২৩টি হিসাব খুলেছে শিক্ষার্থীরা। অপরদিকে ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড স্থিতির ভিত্তিতে শীর্ষে অবস্থান করছে। তাদের সংগৃহীত আমানত প্রায় ৪৬৫ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। যা মোট স্থিতির ৩১.১৭ শতাংশ।

অর্থসূচক/জেডএ/কেএসআর