‘নারী উদ্যোক্তাদের জন্য এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হবে’

0
99
এমএ মান্নান

এমএ মান্নাননারী উদ্যোক্তাদের জন্য প্রয়োজনে এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেছেন, ১শ কোটি না প্রয়োজনে এক হাজার কোটি টাকা নারী উদ্যোক্তাদের কল্যাণে বরাদ্দ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির উদ্ভাবনী সহায়তা নারী উদ্যোক্ততাদের এগিয়ে চলা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এশিয়া ফাউন্ডেশন ও বাংলালিংক যৌথ উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার নারীদের উন্নয়নে বিভিন্ন ধরণের কাজ করে যাচ্ছে। কেননা নারীরা সাবলম্বী হলে দেশের অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে।

তিনি স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরীর উদাহরণ দিয়ে বলেন, আমাদের জাতীয় সংসদের স্পিকার একজন নারী। তিনি তার যোগ্যতা দিয়ে আজকের এ অবস্থানে এসেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের এগিয়ে আনতে এভাবেই দৃষ্টান্ত  রেখে চলেছেন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রোকেয়া আফজাল রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন এশিয়া ফাউন্ডশনের সহকারী পরিচালক সৈয়দ আল মুকিত, বাংলালিংকের মার্কেটিং ডিরেক্টর সোলায়মান আলম, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবু ইউসুফ, ফ্যাশন ডিজাইনার বিবি রাসেল প্রমুখ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে তৃণমূল পর্যায়ের নারী উদ্যোক্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিবি রাসেল তার বক্তব্যে বলেন, দেশকে গড়ে তুলতে আমাদের স্বপ্ন দেখতে হবে এবং সে স্বপ্ন বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

টেলিকম কোম্পানিগুলোর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের সুযোগ সুবিধাগুলো দেশের প্রান্তিক জনগণের জন্য নিশ্চিত করতে হবে। তাদের কাছে প্রযুক্তি সহজলভ্যতা নিশ্চিত করতে হবে। তবেই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সহজ হবে।

বাংলালিংকের পক্ষে সোলায়মান আলম বলেন, ‘মূলত এই প্রকল্প আমাদের সমাজে নারী উদ্যোক্তাদের বাধা অপসারণে কাজ করবে। বাংলাদেশের গ্রামীণ বা শহুরে যেকোন নারীই পারে সঠিক তথ্য, অর্থের জোগাণ, প্রশিক্ষণ এবং স্থানীয় বাজার সম্পর্কে স্বচ্ছ ও ব্যাপক ধারণার মাধ্যমে সমাজের উন্নয়নে অবদান রাখতে।’

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানে দেশের চারটি বিভাগীয় শহড় রংপুর, বরিশাল, সিলেট, রাজশাহীর জন্য চারটি নতুন নাম্বার চালু করা হয়। যার মাধ্যমে বাংলালিংক নারী উদ্যোক্তাদের প্রভাব উন্নয়নে নেটওয়ার্কিং এর ভূমিকা এবং স্টেকহোল্ডারদের প্রচারণা অবদান, মোবাইল প্রযুক্তির কৌশলগত ব্যবহারে তাদেরকে আরও শক্তিশালী হতে হবে।

এএইচ/সাকি