গ্ল্যাক্সো’র শেয়ারহোল্ডাররা ৫২ হাজার কোটি টাকা ফেরত পাচ্ছেন

0
139
glaxo and novertis

glaxo and novertisচিকিৎসক, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও সরকারি কর্মকর্তাদের ঘুষ দেওয়ার অভিযোগের  চাপ এখনও সামলে উঠতে পারেনি ব্রিটেনের সবচেয়ে বড় ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন (জিএসকে)। এরই মধ্যে নিজেদেরকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। আর এর অংশ হিসেবে আরেক ওষুধ প্রস্তুতকারক নোভারটিজের সাথে সম্পদ বিনিময় করতে যাচ্ছে তারা। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে পরস্পর চুক্তিতে সই করেছে  প্রতিষ্ঠানটি। খবর বিবিসির।

আলোচিত চুক্তির আওতায় একে অপরের ওষুধ প্রস্তুত ইউনিট অধিগ্রহণ করবে কোম্পানি দুটি। এর প্রভাব পড়বে কোম্পানি দুটির শেয়ার কাঠামোতেও। চুক্তির ফলে গ্ল্যাক্সোর শেয়ারহোল্ডাররা ৪শ কোটি পাউন্ড ফেরত পাবেন। বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৫২ হাজার কোটি টাকা।

এ চুক্তি অনুযায়ী, নোভারটিজ ১ হাজার ৬০০ কোটি ডলারে অধিগ্রহণ করবে জিএসকের ক্যান্সার নিরাময়কারী ওষুধের ব্যবসা। অন্যদিকে নোভারটিজের কাছ থেকে ৭১০ কোটি ডলারে তাদের ফ্লুজাতীয় রোগের ভ্যাকসিন ব্যবসা কিনে নেবে জিএসকে। এছাড়া উভয় কোম্পানিই তাদের অভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) ইউনিটকে একীভুত করবে বলে উল্লেখ করা হয় চুক্তিতে।

জিএসকের প্রধান নির্বাহী  অ্যান্ড্রু জানান, দুই কোম্পানির মধ্যে সম্পদ বিনিময় ও ভোক্তা স্বাস্থ্য ইউনিট একীভুত করা অনেকটা দুর্লভ হলেও এই  লেনদেনের ফলে উভয় কোম্পানিই  তাদের  শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ইতিবাচক ফলাফল বয়ে আনতে পারবে। এছাড়া সামগ্রিকভাবে উভয় কোম্পানির আয় বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তিনি।  তিনি বলেন, নতুন এই চুক্তির ফলে ৪’শ কোটি পাউন্ড ফেরত পাচ্ছেন গ্ল্যাক্সো শেয়ারহোল্ডাররা। এর মাধ্যমে তারা যৌথভাবে বছরে ৬৫০ কোটি পাউন্ড আয় করতে পারবে বলে জানান অ্যান্ড্রু।

 এদিকে জিএসকে ছাড়াও আরেকটি ওষুধ কোম্পানি লিলির সাথে একটি চুক্তি করেছে  নোভারটিজ। ওই চুক্তি অনুযায়ী  ৫৪০ কোটি ডলারে  লিলির কাছে তাদের পশু স্বাস্থ্য বিভাগটি বিক্রি করছে নোভারটিজ।

নোভারটিজের প্রধান নির্বাহী জোসেফ জিমনেজ বলেন, এর মাধ্যমে উভয় কোম্পানিই তাদের পুঁজিকে আরও শক্তিশালী করতে পারবে। এতে করে তাদের  উৎপাদনকে আরও ত্বরাণ্বিত করতে পারবে বলে জানান তিনি।

এস রহমান/