ঋণ অনিয়মে ডিএমডিসহ বেসিক ব্যাংকের ছয় কর্মকর্তা বরখাস্ত

0
110
BASIC-Bank-Limited-logo
বেসিক ব্যাংকের লোগো

BASIC-Bank-Limited-logoবেসিক ব্যাংকের তিন হাজার ৫০০ কোটি টাকার ঋণ অনিয়মের অভিযোগে ব্যাংকটির  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোনায়েম খানসহ ছয় কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত একটি অফিস আদেশ জারি করা হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ব্যাংকের বোর্ড সভায় ওই ছয় কর্মকর্তাকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত হয়।

বরাখাস্তকৃত অন্যরা হলেন- ব্যাংকটির মহা-ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আলী, খন্দকার শামীম, জয়নাল আবেদীন, উপ-মহাব্যবস্থাপক সেতারা আহমেদ ও সহকারী ব্যবস্থাপক জাহিদ হাসান।

সূত্র জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদনে সরকারি বিশেষায়িত এই ব্যাংকের কার্যক্রমে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠে এসেছে। এতে দেখা যায় ব্যাংকটির তিনটি শাখা থেকে  কয়েকটি গ্রুপ বিশাল অংকের ঋণ নিয়ে জালিয়াতি করে।  আর এতে ব্যাংকের এ কর্মকর্তারা নিয়ম বহির্ভূতভাবে তাদের সহায়তা করে আসছে।

সূত্র আরও জানায়, ব্যাংকের শান্তিনগর শাখা থেকে গত বছরের প্রথম ১০ মাসে প্রায় নয়শ’ কোটি টাকা ঋণ দেয়া হয়। এসব ঋণের বিপরীতে মর্টগেজও রাখা হয়নি। নিয়ম ভেঙে ঋণ দেওয়ায় কয়েকজন বড় গ্রহিতা এরই মধ্যে স্পেশাল মেনশন অ্যাকাউন্টে (এসএমএ) নাম লিখিয়েছেন। অভিযোগ রয়েছে, খেলাপি ঋণের তথ্য গোপনসহ কোনো কোনো ক্ষেত্রে একক ঋণ গ্রহিতার সর্বোচ্চ সীমাও লঙ্ঘন করা হয়।

একইভাবে গুলশান শাখা থেকে শাখা থেকে ১৬টি নাম সর্বস্ব প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ১ হাজার ৩৬০ কোটি টাকা ঋণ প্রদান, নয়টি প্রতিষ্ঠানের বিপরীতে অনুমোদনহীন ঋণ সীমা এবং ছয়টি ভুয়া প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এলসি খুলে বিদেশে অর্থ পাচার করার সুযোগ তৈরি করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া ভুয়া বন্ধক দেখিয়ে এ শাখা থেকে আরও ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।

আর ব্যাংকটির দিলকুশা শাখা থেকে ১৪০০ কোটি টাকার ঋণ অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে বেলায়েত নেভিগেশনের নামে ৭০ কোটি, আদিব ডায়িং ৫৫ কোটি, ওয়েলটেক্স ৪২ কোটি, ওয়েল সোয়েটার্স ২৫ কোটি, সৈয়দ কনস্ট্রাকশন ৭০ কোটি, বে-নেভিগেশন ৫৫ কোটি, আলোটেক ২৮ কোটি, অ্যাপোলো কনস্ট্রাকশন ৬৫ কোটি ও ইমারেল্ড কোম্পানির নামে ৫৫ কোটি টাকার ঋণে বড় ধরনের অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এইউ নয়ন