রাজনৈতিক টানাপোড়নে ক্ষতিগ্রস্ত দেশের অর্থব্যবস্থা: ডা. ওয়াজেদ

0
52
Oyezed

Oyezedপ্রবাসীরা তাদের কষ্টার্জিত অর্থের মাধ্যমে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। কিন্তু রাজনৈতিক টানাপোড়নে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী প্রবাসীরা নিজ দেশে বরাবরই উপেক্ষিত। এ কারণে হুমকিতে পড়ছে দেশের অর্থব্যবস্থা এমনটাই মন্তব্য করেছেন নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত ‘সাপ্তাহিক বাংলাদেশ’ পত্রিকার সম্পাদক ডা. ওয়াজেদ এ খান।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত ‘সাপ্তাহিক বাংলাদেশ’ পত্রিকা আয়োজিত “বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক সংকট: উত্তরণের উপায়” শীর্ষক এক গোল টেবিল আলোচনায় ডা. ওয়াজেদ এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশ এখন চরম ক্রান্তিলঘ্ন অতিক্রম করছে। দেশে স্বাধীনতার চার দশকেও গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পায়নি। আমাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন বারবার বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ভয়াভহ এক অনিশ্চয়তা ও সংকটের দিকে ধাবিত হচ্ছে দেশ।

সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে কবি ফরহাদ মাজহার বলেন, স্বাধীনতার ৪৩ বছর পার হয়ে গেলেও অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে ততোটা এগুতে পারেনি দেশ। রেজওয়ানার স্বামীকে অপহরণের ঘটনা আমাদেরকে চরমভাবে মর্মাহত করেছে। গুম, অপহরণ এবং অন্যান্য অপরাধের ঘটনা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এ সময় রেজওয়ানার স্বামীকে অপহরণের ঘটনায় ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা “র” জড়িত থাকতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি মন্তব্য করেন এমন দিনে রেজওয়ানার স্বামীকে অপহরণ করা হয়েছে যেদিন বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী গুমের দুই বছর পূর্ণ হলো।

তিনি আরও বলেন, আমাদেরকে দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে গণতন্ত্রের জন্য একসাথে কাজ করতে হবে। প্রবাসীদেরকে নির্দলীয় অবস্থান থেকে দেশের উন্নয়নে কাজ করে যেতে হবে। সমাজের বিভাজনগুলো কাটিয়ে উঠতে হবে। গণতন্ত্র আমাদের অধিকার। তাই প্রতিটি মানুষের কথা বলার এবং অধিকার রক্ষা করা আমাদের গণতান্ত্রিক দায়িত্ব। এই দায়িত্ব আমরা পুরোপুরি রাষ্ট্রের হাতে ছেড়ে দিতে পারি না।

এ সময় তিনি বলেন, পৃথিবীর কোথাও বিচার চলাকালে আইন পরিবর্তন করে কাউকে ফাঁসি দেওয়ার উদাহরণ নেই। কিন্তু বাংলাদেশে হয়েছে। শুধু নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় না। সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

মানবাধিকার লঙ্ঘনে সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, কিছু মানবাধিকার সংগঠন সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করছে।

গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, মাহমুদুর রহমানের জন্য জজ সাহেবদের বিবেক নড়াচড়া করে না। গত এক বছর ধরে তিনি কারাগারে আছেন। তাকে জামিন দিতে বিব্রতবোধ করলেও বিচারকরা বেতন নিতে বিব্রতবোধ করেন না। প্রবাসী শ্রমিকদের ঘামে অর্জিত পয়সা দিয়ে সরকার কুইক রেন্টালের নামে কুইক পকেট ভর্তি করছে।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি শওকত মাহমুদ বলেন, দেশে বর্তমানে শুধু গণতান্ত্রিক সংকট নয় রাষ্ট্রীয় সংকট চলছে। বর্তমান সরকার ফ্যাসিবাদের চরম রূপ দেখিয়েছে। সাধারণ মানুষের জন্য নয়, সমস্যা জিইয়ে রেখে ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার জন্য কাজ করছে সরকার।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম চৌধুরী, জাস্ট নিউজের সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ডা. রফিক চৌধুরী প্রমুখ।

এমআরএস