আটকে পড়া যাত্রীদের বার্তা ঢেউ তুলেছে বিশ্বজুড়ে

0
46
korea-ferry-boat-sinks.si

korea-ferry-boat-sinks.si

দক্ষিণ কোরিয়ার দুর্ঘটনা কবলিত ফেরিতে আটকে পড়া যাত্রীদের পাঠানো বার্তা ঢেউ তুলেছে বিশ্বজুড়ে। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে পরিজনদের কাছে পাঠানো এসব আবেগী বার্তায় ফুটে উঠছে ভালবাসা, ভয় এবং নির্ভীকতার মতো মানবীয় আবেগ। একইসাথে শঙ্কিত পরিজনদের বুকে ফিরিয়ে আনছে হারানো স্বজন ফিরে পাওয়ার আশা।  খবর এনডিটিভির।

গত বুধবার ইনছিয়ন থেকে দক্ষিণের দ্বীপ জেজুতে যাবার পথে এই ফেরিটি উল্টে যায়। এই সময় ফেরিতে প্রায় ৪৫০ জন যাত্রী ছিল, যাদের অধিকাংশই মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। দুর্ঘটনার পরে ৯ জনকে মৃত এবং  ৩০০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও শতাধিক যাত্রী এখনও ফেরিটিতে আটকা পড়ে আছে।

শিন ইয়ং-জিন নামে এক আটকা পড়া শিক্ষার্থী তার মাকে পাঠানো বার্তায় লিখেন, আমি হয়ত তোমাকে আর বলতে পারব না তাই বলেছি, মা, তোমাকে অনেক ভালবাসি। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ মাধ্যমে এই বার্তাটি প্রকাশিত হওয়ার পরপরই বিশ্ব মিডিয়ায় ঝড় উঠে যায়। পরবর্তীতে আটকে পড়া যাত্রীদের একের পর এক ক্ষুদে বার্তার খবর প্রকাশিত হতে থাকে।

কিম উং কি নামের এক যাত্রী তার ভাইকে সাহায্যের আবেদন জানিয়ে লিখে পাঠিয়েছন, আমাদের কক্ষটি ৪৫ ডিগ্রি ঘুরে আছে এবং আমার মোবাইলও ঠিকমত কাজ করছে না।

শিন নামের আরেক ছাত্রী লিখেছেন, বাবা, চিন্তা করো না, আমি লাইফ জ্যাকেট পরে আছি এবং এখানে আমার মতো অনেকেই আটকা পড়েছে।

তবে, আটকে পড়া অনেক যাত্রীই এখনও পর্যন্ত লাইফ জ্যাকেট পাননি বলে অভিযোগ করেছেন তাদের স্বজনরা। এক স্বজন জানান, তার সন্তান সর্বশেষ বার্তা জানিয়েছে যে সে এখনও লাইফ জ্যাকেট পায়নি এবং এরপরেই তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার জানিয়েছে, আটকা পড়াদের উদ্ধারে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এই সময় সরকারের পক্ষ থেকে উদ্ধারের আগ পর্যন্ত অভিভাবকদের ধৈর্য ধরার অনুরোধ জানানো হয়েছে।