ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং তৈরির কাঁচামাল আমদানিকে শুল্ক মুক্ত করার দাবি বিজিএমইএর

0
30

bgmea-nbrসম্প্রতি দেশের তৈরি পোশাক কারখানার নিরাপত্তার প্রশ্নে ৫৭টি শেয়ার্ড বিল্ডংয়ে ১১০ কোটি ডলারে ওর্ডার বাতিল হয়েছে। এই অবস্থায় তৈরি পোশাকের ক্রেতাদের ধরে রাখতে ও কারখানার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রি-ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং (স্টিলের অবকাঠামো) তৈরি করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন বিজিএমইএর নেতারা। আর এ জন্য তারা ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং তৈরির কাঁচামাল আমদানিকে শুল্ক মুক্ত করার দাবি জানানিয়েছেন ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে এনবিআরের সঙ্গে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) প্রাক বাজেট আলোচনায় সংগঠনটির সভাপতি আতিকুল ইসলাম এমন কথা বলেন।

তিনি বলেন, এখন পোশাক কারখানার মধ্যে ৪০ শতাংশ বিল্ডিংই হলো শেয়ার্ড বিল্ডিং। যেখানে প্রায় ১৫ লাখ পোশাক শ্রমিক কর্মরত আছেন। এখন বিদেশি ক্রেতারা এই সব বিল্ডিংয়ে কাজ দিতে চাচ্ছে না।

তাই এই মুহূর্তে কারখানা স্থানান্তর জরুরি বলে জানান তিনি।আর এ জন্য ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং (স্টিলের অবকাঠামো) তৈরি করা জরুরি বলে মনে করেন তিনি।

তবে এজন্য প্রি-ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং তৈরির কাঁচামাল আমদানিতে বিদ্যমান ৬১ শতাংশ শুল্ক মুক্ত করার দাবি জানান তিনি। সেই সাথে কারখানার নিরাপত্তা সামগ্রি আমদানিতে বিদ্যমান মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) প্রত্যাহার করাও দাবি জানান তিনি।

তিনি বলেন, পোশাক শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হলে গ্রিন ফ্যাক্টরির (পরিবেশবান্ধব) দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আর এই ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী বাল্ব (এলইডি) আমদানি করতে হবে। এই পণ্যটির ওপরে ৩১ শতাংশ শুল্ক বিদ্যমান আছে। বাজেটে পোশাক শিল্পের স্বার্থে এই পণ্যটির ওপর থেকে শুল্ক প্রত্যাহারের দাবিও জানান তিনি।

তাছাড়া রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্পের অডিটের জন্য দলিলাদি দাখিলের সময়সীমা ৩ মাসের পরিবর্তে ৬ মাস করার দাবি জানানো হয়।

পোশাক শিল্পে নিয়োজিত শ্রমিকদের আবাসন নির্মাণে প্রণোদনা প্রদানের বিষয়ে প্রস্তাব করেন তিনি। তিনি বলেন, গাজীপুর, টঙ্গী, সাভার, নারায়নগঞ্জ এলাকায় এই সুবিধা সম্প্রসারণ করে এই বিধানে প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

এসময় গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির ওপর থেকে প্রদত্ত মূসক প্রদানের ক্ষেত্রে জটিলতা দূর করতে শতভাগ মূসক প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।

তাছাড়া, কারখানার মান উন্নয়নের লক্ষে স্বল্প সুদে ঋণ প্রদানের জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখার দাবিও জানান তিনি।