যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের বিনিয়োগের আহবান ডিসিসিআই’র

0
63
ডিসিসিআই-যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী

ডিসিসিআই-যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)’র পক্ষ থেকে প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিজ দেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বুধবার ডিসিসিআই’র সভাপতি মোহাম্মদ শাহজাহান খানের সাথে যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এর চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ ওবিই এর নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলের সাক্ষাতকালে তিনি এই আহ্বান জানান।

যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-এর সভাপতি বজলুর রশীদ, ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি এম এ রউফ, সহ-সভাপতি আব্দুল মালিক ও প্রতিনিধিদলের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্ক বিদ্যমান থাকলেও তা বর্তমানে বাংলাদেশের অনুকূলে রয়েছে। তিনি দুদেশের মধ্যকার বাণিজ্য ব্যবধান কমানোর লক্ষ্যে যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীবৃন্দকে বাংলাদেশ থেকে আরও বেশি হারে পণ্য সামগ্রী আমদানি এবং দুদেশের মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক যোগাযোগ আরও বাড়ানোর আহ্বান জানান।

ডিসিসিআই সভাপতি বাংলাদশের তৈরী পোষাক খাতের কাজের পরিবেশ উন্নয়নের সম্প্রতি যুক্তরাজ্য ও নেদারল্যান্ড যৌথভাবে গৃহীত ১৫ মিলিয়ন ডলারের ফান্ড তৈরীর জন্য ধন্যবাদ জানান। তিনি বাংলাদেশ থেকে আরও বেশি হারে হিমায়িত খাদ্য, কৃষিজাত পণ্য, কেমিক্যাল, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাট ও পাটজাত পণ্য এবং তৈরী পোষাক প্রভৃতি আমদানির আহ্বান জানান।

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি বলেন, বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে এবং ২০১২-১৩ অর্থবছরে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ১৫৯.৪৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

তিনি জানান, বাণিজ্য সম্প্রসারণে ঢাকা চেম্বার ‘ডিসিসিআই হেল্প ডেস্ক’ খুলেছে, যার মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি বাংলাদেশি ব্যবসায়ীবৃন্দ নিজেদের কাঙ্খিত উদ্যোক্তা খুঁজে পাবে।

যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি -এর চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ ওবিই বলেন, বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীদের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে এ চেম্বার কাজ করবে। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যের প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ দেশে বিশেষ করে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে অত্যন্ত আগ্রহী। তিনি বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকাকে গতিশীল রাখার জন্য বেসরকারি উদ্যোক্তাদের একযোগে কাজ করতে হবে। তিনি ঢাকা চেম্বার এবং যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-এর মধ্যকার সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরের প্রস্তাব করেন। তিনি জানান, এ দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা করার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিরা অত্যন্ত আগ্রহী।

যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-এর সভাপতি বজলুর রশীদ বলেন, নতুন প্রতিষ্ঠিত এ চেম্বার বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক উন্নয়নে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে। তিনি বাংলাদেশের জনগনকে দক্ষ জনশক্তিতে রুপান্তরের জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন এবং এ খাতে প্রবাসী বাংলাদেশি বিনিয়োগের আগ্রহী বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। তিনি আরও জানান, ভবিষ্যত উদ্যোক্তা তৈরীর জন্য নতুন প্রজন্মকে আগ্রহী করার লক্ষ্যে যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অফ কমার্স ‘স্টুডেন্ট মেম্বারশীপ’ প্রবর্তনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

ডিসিসিআই সহ-সভাপতি খন্দকার শহীদুল ইসলাম, পরিচালক মো. ইফতেখারউদ্দিন (নওশাদ), রিজওয়ান-উর রহমান, মুক্তার হোসেন চৌধুরী, এস রুমি সাইফুল্লাহ, আব্দুস সালাম, মো. শোয়েব চৌধুরী, এ কে ডি খায়ের মোহাম্মদ খান, কে জি করিম সভায় উপস্থিত ছিলেন। ডিসিসিআই ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি ওসামা তাসীর ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সাকি/