দেশে কৃষি উৎপাদন বেড়েছে চারগুণ

0
61

Paddyগত চার বছরে দেশে কৃষিতে উৎপাদন ক্ষমতা চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এ কারণেই সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অগ্রগতি সারা পৃথিবীর মানুষকে তাক লাগিয়ে দিতে পেরেছে বলে দাবি করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁয়ে পরিসংখ্যান ভবন মিলনায়তনে অর্থনৈতিক শুমারি ২০১৩ এর মূল শুমারি কার্যক্রমে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য শ্রেষ্ঠ কর্মীদের সম্মাননা ও পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, “দেশে এখন খাদ্য ঘাটতি নেই।গত চার বছরে দেশের কৃষি উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় চারগুণ বেড়েছে। বাংলাদেশ এখন খাদ্যে সংসম্পূর্ণ হয়েছে। বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি নয়।”

অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে বাংলাদেশের প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, আমরা শুধু অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে সফল নই। আমরা সামাজিক বিভিন্ন খাতেও সফলতা অর্জন করেছি। দারিদ্র্য বিমোচন থেকে শুরু করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জীবনমানের উন্নতি এবং গড় আয়ু বৃদ্ধিতেও আমরা সফল হয়েছি।

তিনি জানান, আমাদের দেশের মানুষের গড় আয়ু এখন বেড়ে হয়েছে ৬৯ বছর। আর দারিদ্র্যের সংখ্যার হারও কমে হয়েছে ২৬ ভাগ।

মন্ত্রী এসময় আশা প্রকাশ করে বলেন, আপনারা সবাই এগিয়ে আসলে এমন গড় আয়ু করা সম্ভব যেখানে প্রতি তিনজন শিশুর মধ্যে একজন শিশু ১০০ বছর বাঁচবে।

সভাপতির বক্তব্যে পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব নজিবুর রহমান বলেন, যেকোনো দেশের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিকল্পনা ও অগ্রগতিতে পরিসংখ্যান বা তথ্য-উপাত্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক গোলাম মোস্তফা কামাল বলেন, চারটি শুমারি পরিচালনার জন্য পরিসংখ্যান ব্যুরো জনগণের কাজে দায়বদ্ধ। এর মধ্যে অর্থনৈতিক শুমারি গুরুত্বপূর্ণ একটি জরিপ। এসব কাজে জনগণ থেকে শুরু করে সব পর্যায়ের কাছ থেকে আমরা সহযোগিতা পেয়েছি।

তিনি আরও বলেন, অর্থনৈতিক শুমারির উপর আমরা মূল্যায়ন শুরু করেছি। এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন শিগগিরই প্রকাশ করা হবে। এছাড়া চলতি মাসের ২৫ তারিখ থেকে বস্তি শুমারির গণনাকাজ শুরু হবে। আমাদের কর্মীরা অনেক ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। তারা অনেক পরিশ্রমী এবং সৃজনশীল।

অনুষ্ঠানে মোট ৪৬৯ জনকে সম্মাননা ও পদক দেওয়া হয়। প্রতি জেলা থেকে ৫জন শ্রেষ্ঠ গণনাকারী, একজন সুপারভাইজার, একজন জোনাল অফিসারকে পদক ও সনদ প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, কৃষি মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, ২০০৭-০৮ অর্থবছরে দেশে মোট কৃষি উৎপাদন ছিলো ৩৭৭ দশমিক ৬৮ লাখ মেট্রিক টন। পরে ২০১১-১২ অর্থবছরে তা বেড়ে ৪৪৩ দশমিক ৮৭ লাখ মেট্রিক টনে দাঁড়িয়েছে।

এছাড়া পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, গত চার বছরে দেশে অভ্যন্তরীণ খাদ্য উৎপাদন বেড়েছে ৬৬ লাখ টনেরও বেশি।

এইচকেবি/