গণহত্যা নিয়ে গবেষণা এখন ইতিহাসের দাবি: সংস্কৃতিমন্ত্রী

0
37

Assadujaman noor১৯৭১সালের ২৫শে মার্চ রাতে বাঙালি জাতির ওপর হামলা ইতিহাসে গণহত্যা নামে পরিচিত। সামগ্রিকভাবে একটি জাতিকে ধ্বংস করার জন্য এরকম হত্যাকাণ্ড চালানোই যথেষ্ট। এই গণহত্যা নিয়ে গবেষণা এখন ইতিহাসের দাবি বলে মন্তব্য করেছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

বুধবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উচ্চতর কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রে “সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজ” (সিজিএস) এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সেন্টার ফর এডভান্স রিচার্স ইন আর্টস এন্ড স্যোশাল সায়েন্সেস (কারাস) এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক যে, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদারবাহিনী কর্তৃক আমাদের ওপর যে হত্যাকাণ্ড হয়েছে আন্তর্জাতিকভাবে তাকে আজও গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি।

আসাদুজ্জামান নুর বলেন, এটাকে গৃহযুদ্ধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এজন্যই এটিকে নিয়ে গবেষণা করা প্রয়োজন। যাতে করে আন্তর্জাতিকভাব স্বীকৃতি লাভে সক্ষম হয়। আমরা সকলে আন্তরিকতার সাথে কাজ করলে আশা করি সফল হতে পারবো।

ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, আর কখনো গণহত্যার মতো নৃশংস ঘটনা ঘটুক, বুদ্ধিজীবী মারা যাক, নারী ধর্ষিত হোক সেটি আমরা চাই না। আগামি বছরের ২৫শে মার্চকে যাতে গণহত্যা দিবস হিসেবে পালন করা হয় সেজন্য জাতিসংঘের কাছে আবেদনের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হবে।

সিজিএসের পরিচালক অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহম্মেদের সভাপতিত্বে এ সময় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, কারাসের পরিচালক অধ্যাপক ড. সালাহউদ্দিন সেলিম, আইন ও শালিস কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল, টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান প্রমুখ।

এএইচ