বিমান বন্দরে ‘র’ এর উপস্থিতির ব্যাখ্যা চাইলেন ফখরুল

0
25
fokhrul

fokhrulভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’ বাংলাদেশের বিমানবন্দর থেকে পাকিস্তানি গোয়েন্দো সংস্থা আইএসআইয়ের এক সদস্যকে ধরে নিয়ে গেছে। একটি স্বাধীন দেশে কীভাবে এটা সম্ভব?  তাই সরকারের কাছে এর ব্যাখ্যা চেয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক দলের আয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের মুক্তির দাবি শীর্ষক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি সরকারকে এ প্রশ্ন করেন।

ফখরুল বলেন, টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত তথ্য যদি সত্য হয় তাহলে জনগণ জানতে চায় বাংলাদেশের বিমানবন্ধর থেকে একটি দেশের গোয়েন্দা সংস্থার লোক অন্য দেশের গোয়েন্দার লোকদেরকে কিভাবে ধরে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, দেশে বর্তমানে অঘোষিত একদলীয় শাসন চলছে। তরুণ প্রজন্মকে তাদের চেনা দরকার ছিল। এর আগেও ক্ষমতায় এসে জনগণের মৌলিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে তারা। বাকশাল কায়েম করে গণমাধ্যমের মুখ বন্ধ করে দিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, তারেক রহমান লন্ডনে বসে যখন আসল সত্যটি প্রকাশ করেছেন তখন মনে হলো আওয়ামী লীগের গা বুঝি পুড়ে গেলো। সংবিধানে ৩টি অনুচ্ছেদ করা হয়েছে যেখানে শেখ মুজিব সম্পর্কে কিছু বলা যাবে না, কেই যদি কিছু বলে তবে তার যাবজ্জীবন জেল হবে। গণতান্ত্রিক দেশে একজন মানুষ সম্পর্কে কিছু বলা যাবে না এটা কোন ধরণের গণতন্ত্র। অথচ গণতন্ত্রের ভাষা হচ্ছে শত ফুল ফুটতে দাও।

ইলিয়াস আলী সম্পর্কে তিনি বলেন, আগামিকাল ইলিয়াস আলীর গুমের ২ বছর পূর্ণ হচ্ছে। অথচ আজও তাকে ফিরিয়ে দিতে পারেনি সরকার। প্রধানমন্ত্রী ইলিয়াস আলীর পরিবারের কাছে কথা দিয়েছিলেন তাকে যে কোনো মূল্যে খুঁজে বের করবেন কিন্তু তিনি তার কথা রাখেননি।

সরকারের অনৈতিক কাজের প্রতিবাদে নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারের এ ধরনের অন্যায় আচরণের প্রতিবাদে যুবকদেরকে প্রস্তুত হতে হবে আন্দোলনের জন্য। গণতান্ত্রিক উপায়ে আন্দোলন করে স্বৈরাচারি সরকারকে হটাতে হবে।

দেশ আজ গভীর সংকটে আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তিস্তায় পানি নেই। ৫ বছর ধরে একটি চুক্তি বাস্তবায়ন হয়নি। ভারত আমাদের সামনে মুলা ঝুলিয়ে রেখেছে।

স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনির হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের ভূইয়া, যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়লাজ্জেম হোসেন আলাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল বারী বাবু প্রমুখ।

জেইউ/কেএফ