পাঁচ কারণে ড্রোন কিনছে গুগল

0
33
drone

drone

ফেসবুককে ডিঙিয়ে ড্রোন স্টার্ট-আপ ফার্ম টাইটান এরোস্পেস কিনে নিয়েছে গুগল। তবে, এই ওয়েব জায়ান্টের ড্রোন আসক্তি নতুন নয়, বরং বেশ পরিকল্পিত পথেই এগুচ্ছে গুগল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ড্রোন নিয়ে গুগলের পরিকল্পনা ফেসবুকের মতো অতটা স্পষ্ট নয়। তাই, টেক জগতে এই নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা শেষ নেই। সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসও এক প্রতিবেদনে ড্রোন নিয়ে গুগলের সম্ভাব্য পাঁচ পরিকল্পনার পূর্বাভাস প্রদান করেছে। পাঠকদের সুবিধার্থে অর্থসূচকের পক্ষ থেকে তা নিম্নে উপস্থাপন করা হল :

ফেসবুককে টেক্কা দেয়া

টেক বিজনেসের পুরোটাই এখন ইন্টারনেটের দখলে। তাই ভবিষ্যতে ইন্টারনেটের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পারলে ব্যবসা পুরোটাই করায়ত্ত করা সম্ভব। তাছাড়া পরিকল্পনা মতোপৃথিবীর পাঁচশ কোটি মানুষের কাছে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেওয়ার সক্ষমতা অর্জন করতে পারলে বিজ্ঞাপন থেকে বেশ বড় অংকের অর্থ আয় করা অসম্ভব কিছু নয়।

সবকিছু গুগল ম্যাপের আওতায় আনা

গুগলের অন্যতম জনপ্রিয় সেবা হল ম্যাপ। কিন্তু প্রাযুক্তিক সীমাবদ্ধতার কারণে এখনো বিশ্বের অনেক অঞ্চল এই সুবিধার বাইরে রয়েছে। আর এই প্রতিবন্ধকতা এড়াতে ড্রোনের চেয়ে ভালো বিকল্প আর কি হতে পারে। ক্যামেরা নিয়ে ঘুরে বেড়াবে ড্রোন আর ঘরে বসেই যে কেউ ইচ্ছামত জায়গা ঘুরে আসতে পারবে এমনটাই গুগলের পরিকল্পনা।

বৈশ্বিক সামরিক নেটওয়ার্ক

সামরিক কাজেই ড্রোনের উদ্ভাবন। তবে, বিতর্কের কারণে এখন হয়তো বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার এই কাজে ড্রোনের ব্যবহার কমিয়ে আনছে। কিন্তু প্রতিরক্ষা নেটওয়ার্কের উন্নয়নে ড্রোনের ব্যবহার ফুরিয়ে যায়নি, বরং সম্ভাবনাময়। আর একাজে সহায়তা করতে এগিয়ে আসতে পারে গুগল।

ভাড়া দেওয়া

সংবাদ পাঠাতে এবং ছবি তুলতে সংবাদ সংস্থাগুলো দিন দিন প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে পড়ছে। আর এই সুযোগ লুফে নিতে পারে গুগল। ড্রোনে ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি নেই বললেই চলে, তাই সংবাদের কাজে সংস্থাগুলোকে ড্রোন ভাড়া দিয়ে অর্থ আয় করতে পারে গুগল।

বিশ্বব্যাপী হাইস্পিড ব্রডব্যান্ড সেবা

বিশ্বব্যাপী ব্রডব্যান্ড সেবা পৌছে দিতে ড্রোন ব্যবহার করতে পারে গুগল।  ফলে হয়তো টেলিকম কোম্পানিগুলোর দিন ফুরিয়ে আসতে পারে। কিন্তু, সমগ্র বিশ্বজুড়ে এই সেবা পৌঁছে দিতে পারলে আগামি দিনে পৃথিবী আরও এগিয়ে যাবে।