দশ ট্রাক অস্ত্রমামলায় নিজামীসহ চার জনের আপিল আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত

0
28
10-track

10-trackচট্টগ্রামে ১০ ট্রাক অস্ত্র আটক ও চোরাচালান মামলায় জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীসহ চার জনের আপিল আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত।

আজ বুধবার আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আপিল আবেদন করলে আদালত তা গ্রহণ করে।

২০০৪ সালের ১ এপ্রিল নগরের চট্টগ্রাম ইউরিয়া সার কারখানার (সিইউএফএল) জেটিঘাটে খালাসের সময় দেশের ইতিহাসে অস্ত্রের সবচেয়ে বড় চালান আটকের ঘটনায় এ মামলা হয়।

অস্ত্র আটকের ঘটনায় ২০০৪ সালের ৩ এপ্রিল কর্ণফুলী থানায় ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫(বি) ধারায় একটি এবং ১৮৭৮ সালের ১৯(এ) ধারায় অস্ত্র আইনে অপর একটি মামলা করা হয়।

এ মামলায় ৩০ জানুয়ারি চোরাচালান (বিশেষ ক্ষমতা আইনে) ও অস্ত্র আইনে দায়ের হওয়া পৃথক দুটি মামলার রায় দেন বিচারক। চোরাচালান মামলার রায়ে সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামী এবং সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৪ জনকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আদালত। একই রায়ে তাদের পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানাও করা হয়। একই ঘটনায় অস্ত্র আইনে দায়ের হওয়া একটি মামলায় একই আসামিদের ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১৯ (সি) ও ১৯ (এফ) ধারায় সাত বছর কারাদণ্ড দেন বিচারক। উভয় সাজা একসঙ্গে চলবে বলে বিচারক আদেশে উল্লেখ করেন।
নিজামী ও বাবর ছাড়াও দশ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালান মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত অন্য আসামিরা হলেন- উলফা নেতা পরেশ বড়ুয়া, এনএসআইয়ের সাবেক দুই প্রধান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী ও অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুর রহিম, সাবেক পরিচালক অবসরপ্রাপ্ত উয়িং কমান্ডার সাহাবুদ্দিন আহমেদ, সাবেক উপ-পরিচালক অবসরপ্রাপ্ত মেজর লিয়াকত হোসেন, সাবেক মাঠ কর্মকর্তা আকবর হোসেন, সিইউএফএলের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহসিন উদ্দিন তালুকদার, সাবেক জিএম (প্রশাসন) একেএম এনামুল হক, চোরাচালানি হাফিজুর রহমান হাফিজ, ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব নুরুল আমিন, অস্ত্র খালাসের জন্য শ্রমিক সরবরাহকারী দীন মোহাম্মদ ও ট্রলার মালিক আব্দুস সোবহান।

এআর