রানা প্লাজা ট্রাজেডি: আরও ৫৩ পরিবার পাচ্ছে ক্ষতিপূরণ

0
30

রানা প্লাজারানা প্লাজার আরও ৫৩ শ্রমিক পরিবারের ৯০ জন সদস্যকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে। রানা প্লাজাক্ষতিগ্রস্তদের জন্য গঠিত প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে এ অর্থসহায়তা দেওয়া হবে বলে বিজিএমইএ সূত্রে জানা গেছে।

সূত্রটি জানিয়েছে, সর্বশেষ ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে সনাক্তকরা  শ্রমিক পরিবারের সদস্যকে এই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে। আগামি ১৬ এপ্রিল বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। তবে কি পরিমাণ অর্থ ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হচ্ছে তা জানা যায়নি।

এই বিষয়ে বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি শহীদুল্লাহ আজীম জানান, রানা প্লাজার শ্রমিকদের সর্বশেষ ডিএনএ পরীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী ৫৩ শ্রমিক পরিবারের ৯০ জন সদস্যকে এই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে। তবে কি পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে তা প্রধানমন্ত্রী একান্ত বিষয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

ক্ষতিপূরণ অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ’র পক্ষ থেকে সভাপতি আতিকুল ইসলাম ও সহ-সভাপতি শহীদুল্লাহ আজীম উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

জানা যায়, মোট ডিএনএ পরীক্ষার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ৩২২ ব্যক্তির দাঁত ও হাড়গোড় ল্যাবরেটরিতে দেওয়া হয়েছিল। মৃত শ্রমিকদের স্বজনদের পক্ষ থেকে ৫৪০টি পরিবারের ৫৪৮ জন ডিএনএ’র জন্য রক্ত প্রদান করে। তাতে প্রথম রিপোর্টে ১৫৭ জনের ফলাফল মেলে। শ্রম মন্ত্রণালয়ের হাইকোর্টে পাঠানো তালিকায় রানা প্লাজার নিখোঁজ শ্রমিকের সংখ্যা উল্লেখ করা হয় ৩৭৯ জন। তবে সেনাবাহিনীর করা তালিকায় নিখোঁজ শ্রমিকের সংখ্যা ২৬১ জন উল্লেখ করা হয়।

২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল সাভারের রানা প্লাজা ধসে অন্তত ১১৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটে। আর তাতে প্রায় আহত হয় আড়াই হাজারেরও বেশি পোশাক শ্রমিক।

উল্লেখ্য, সাভারের ওই ভবনে ৫টি পোশাক কারখানায় ৩৬৩৯ জন পোশাক শ্রমিক কাজ করতেন। প্রাইমার্কসহ ওয়ালমার্ট, টেক্সম্যান, পিডব্লিউটি গ্রুপ, এনকেডি, ম্যাংগো, জেসিপেনি, গোল্ডেনপি ফেনিং, এলপিপি, ইসেনজা, কেয়ারফোর, সিঅ্যান্ডএ, ক্যাটোকোপ, চিল্ড্রেন প্লেস, বেনিটোন, আদিয়ার, আউচান, ড্রেসহার্ন, মেনিফাটুরা করোনা, প্রিমিয়ার ক্লোথিং, কিডস্ ফ্যাশন, স্টোর-২১, মাস্কট, মাটালান, এল কোর্টে ইনগিস, কিক, লবলো, বন মারচে, ক্যামিউ এর মতো মোট ২৯ ক্রেতা প্রতিষ্ঠান পোশাক কিনতো।

এসইউএম/সাকি