কাঁচাবাজার : রোববারের বাজারদর

0
41
ইলিশ রপ্তানি, hilsha export ban
ইলিশ মাছ- ফাইল ছবি

ইলিশ রপ্তানি, hilsha export banবৈশাখ উপলক্ষে ইলিশের বাজারে আগুন থাকলেও অন্যসব নিত্যপণ্যের দাম অনেকটা স্থিতিশীল রয়েছে। রোববার শান্তিনগর, ফকিরাপুল, মতিঝিল এজিবি কলোনী বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ১ কেজি বা তার চেয়ে বেশি ওজনের এক হালি ইলিশ ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা হাঁকছেন মাছ ব্যবসায়ীরা।

৭০০ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের ১ পিস ইলিশের দাম ১ হাজার ৫০০ থেকে ১ হাজার ৬০০ টাকা। বাজারে ইলিশ মাছের উচ্চমূল্যের কারণে বঞ্চিত হচ্ছেন নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ।

মাছ ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘কারওয়ান বাজার থেকে সেই ভোর রাতে মাছ কিনি। রাত ২টা বা ৩টায় গিয়েও ইলিশ মাছ ভাগে পাই না। সব বেচা-কেনা হয়ে যায়। পাইকারি বাজারে আমাদেরকেও চড়া দাম দিয়ে কিনতে হয় ইলিশ।’

আজকের বাজার চিত্র :

কাঁচাবাজার :

কাঁচাবাজার ঘুরে  দেখা গেছে, প্রতিকেজি শসা ৩৫ টাকা, কাঁচামরিচ ৬০ টাকা, লম্বা বেগুন ৩০ টাকা, গোল বেগুন ৫০ টাকা, শিম ৩০  টাকা, ঝিঙ্গা ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ টাকা,  আলু ১৫ টাকা, গাজর  ৩০ টাকা, করলা ৩০ টাকা, উস্তা ৩০ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, পেঁপে  ২০ টাকা, কচুর লতি ৫০ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, টমেটো ৫০ থেকে ৬০ টাকা, ক্যাপসিক্যাম ২০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
এছাড়া, প্রতিটি ফুলকপি ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৩০ টাকা, মিষ্টিকুমড়া ৪০ থেকে ১০০ টাকা ও লাউ ৩০ টাকা, জালি কুমড়া ২৫ টাকা পিস হিসেবে বিক্রি হচ্ছে এবং প্রতিহালি কাঁচকলা ৩০ টাকা ও লেবু ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
এছাড়া, বাজারে লালশাক, লাউশাক, ডাটা  পুঁইশাকের আঁটি ২০ থেকে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে এবং লেটুস পাতা প্রতিটি ১৫ টাকা, পুদিনাপাতা ১০০ গ্রাম ২০ টাকা, ধনেপাতা প্রতি ২৫০ গ্রাম ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মুদি :

মুদি দোকান ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ২৪ টাকা, আমদানি  পেঁয়াজ ২২ টাকা  চায়না বড় রসুন ৭৫ টাকা, দেশি রসুন ৬০ টাকা, একদানা রসুন ১১০ টাকা, চায়না আদা ২৪০ টাকা, আমদানি আদা ২০০ টাকা, শুকনা মরিচ ১৬০ টাকা , হলুদ ১২০ টাকা, হলুদের গুঁড়া ১৬০ টাকা, মরিচের গুঁড়া ২০০ টাকা, ধনিয়া ৯০ টাকা, আটা (২ কেজির প্যাকেট) ৭৫ টাকা, ময়দা (২ কেজির প্যাকেট) ৮৫ টাকা, দারুচিনি ৩০০ টাকা, এলাচি ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা, জিরা ৩৫০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা, ভেশন ৫০ টাকা, দেশি মশুর ডাল ১০৫ টাকা, ভারতীয় মশুর ডাল ৭০ টাকা, খেসারি ডাল ৪২ টাকা, মুগ ডাল ১২৫ টাকা, ছোলা ৫০টাকা, অ্যাংকর ডাল ৪০ টাকা, মাসকলাই ১০০ টাকা,  খোলা চিনি ৪৪ টাকা, প্যাকেট চিনি ৫২ টাকা ও প্রতি লিটার সয়াবিন খোলা ১১৫ টাকা ও বোতলজাত সয়াবিন ১১৯ টাকা হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

চাল :

আজ চালের বাজারে প্রতিকেজি নাজিরশাইল ৫২ থেকে ৫৫ টাকা, মিনিকেট ৫২ থেকে ৫৪  টাকা, লতা আটাশ ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা, মোটা চাল ৩৫ টাকা, জিরা নাজির ৫২ থেকে ৫৪ টাকা, পাইজাম ৪০ টাকা, চিনি গুড়া ১০০ টাকা, পারিজা ৩৬ থেকে ৩৮ টাকা, বিআর-২৮-৪৪ টাকা, বিআর-২৯-৪২ টাকা, হাসকি ৪২ টাকা, স্বর্ণা ৩৫ টাকা থেকে ৩৬ টাকা, লাল বিরই ৪৫ থেকে ৪৬ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

ডিম :

আজকে বাজারে প্রতি হালি ফার্মের মুরগির লাল ও সাদা ডিম ২৮ টাকা, হাঁসের ডিম ৪০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগির ডিম৪০ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ৪০ টাকা হালি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

মাছ :

আজকের মাছ বাজারে ১কেজি থেকে ১কেজি ২৫ গ্রাম ওজনের প্রতিহালি ইলিশ ১০ হাজার টাকা থেকে ১২ হাজার।৯০০ থেকে ৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৪ হাজার ৮০০ থেকে ৬ হাজার এবং  জাটকা ইলিশের কেজি ৫০০ থেকে ১ হাজার টাকা, কাতল মাছ ৪০০ টাকা, রুই মাছ ৩৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ টাকা, চায়না পুঁটি ১৩০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৪০ টাকা, চিংড়ি (বড়) ১ হাজার ২০০ টাকা, চাষের কৈ ২৫০ টাকা, সিলভার কার্প ১৩০ টাকা, শিং মাছ ৮৫০ টাকা, বজরি টেংরা ৩৫০ টাকা, নলা মাছ ২৫০ টাকা, আইড় মাছ ৭০০ টাকা, কার্ফু মাছ ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাংস :

মাংসের বাজারে গরুর মাংস ৩০০ টাকা, খাসির মাংস ৫০০ টাকা   দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৮০০ থেকে ৪০০ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১৬০ টাকা, লেয়ার মুরগি ১৬০ টাকা, হাঁস ৩৫০ টাকা, ভেড়া ও ছাগীর মাংস ৪৫০ টাকা এবং কবুতরের বাচ্চা ২৬০ টাকা জোড়া হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

ফল :

আজ ফলের বাজারে ফুজি আপেল ১৪০ অষ্ট্রিয়ার গালা ১৫০ টাকা,  মানভেদে কমলা ২০০ থেকে ২৫০ টাকা ডজন, বেদানা ২২০ টাকা, মালটা ১২০ টাকা, কালো আঙ্গুর ২২০ টাকা, সাদা আঙ্গুর ১৮০ থেকে  ১৯০ টাকা,  পেয়ারা ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

অর্থসূচক.কম/এসএস/