বাংলা বর্ষপঞ্জির ইতিহাস

0
68
bangla calender

bangla calenderআসছে পয়লা বৈশাখ। শুরু হবে নতুন একটি বঙ্গাব্দ ১৪২১। তবে ঠিক কবে থেকে বাংলা অব্দ গণনা শুরু হয় সে বিষয়ে আকবরের রাজত্বকালের কথা জানা থাকলেও প্রচলিত আছে ভিন্নমতও। তবে, বাংলা মাস গণনার ক্ষেত্রে ইংরেজি ও হিজরি সনের সাথে পার্থক্য রয়েছে।

বাংলা সনের সূচনা সম্পর্কে মূলত দুইটি মত প্রচলিত আছে৷ প্রথম মত অনুযায়ী – প্রাচীন বঙ্গদেশের (গৌড়) রাজা শশাঙ্ক বঙ্গাব্দ চালু করেছিলেন৷ শশাঙ্কের রাজত্বকাল ছিল আনুমানিক ৫৯০-৬২৫ খ্রিস্টাব্দে।  সপ্তম শতাব্দীর প্রারম্ভেই বঙ্গদেশের রাজা ছিলেন শশাঙ্ক ৷ আধুনিক ভারতের বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার অধিকাংশ এলাকা তার সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত ছিল৷  অনুমান করা হয় যে, জুলিয়ান ক্যালেণ্ডারের সোমবার ১২ এপ্রিল ৫৯৪ খ্রিস্টাব্দে এবং গ্রেগরিয়ান ক্যালেণ্ডারের সোমবার ১৪ এপ্রিল ৫৯৪ খ্রিস্টাব্দে বঙ্গাব্দের সূচনা হয়েছিল৷

দ্বিতীয় মত অনুসারে, ভারতে ইসলামী শাসনামলে হিজরী পঞ্জিকা অনুসারেই সকল কাজকর্ম পরিচালিত হতো।  মূল হিজরি পঞ্জিকা চন্দ্র মাসের ওপর নির্ভরশীল।  চন্দ্র বছর সৌর বছরের চেয়ে  ১১/১২ দিন কম হয়। কারণ সৌর বৎসর ৩৬৫ দিন, আর চান্দ্র বৎসর ৩৫৪ দিন। এ কারণেই চন্দ্র বছরে ঋতুগুলি ঠিক থাকে না।

আর চাষাবাদ ও এ জাতীয় অনেক কাজ ঋতুনির্ভর। এজন্য ভারতের মোগল সম্রাট আকবরের রাজত্বকালে প্রচলিত হিজরি পঞ্জিকাকে সৌর পঞ্জিকায় রূপান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।  সম্রাট আকবর ইরান থেকে আগত বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও জ্যোতির্বিদ আমির ফতুল্লাহ শিরাজীকে[১] হিজরি বর্ষপঞ্জীকে সৌর বর্ষপঞ্জীতে রূপান্তর করার দায়িত্ব প্রদান করেন।  ওমর ফতুল্লাহ্‌ শিরাজির সুপারিশে পারস্যে প্রচলিত সৌর বর্ষপঞ্জীর অনুকরণে [২] ৯৯২ হিজরী মোতাবেক ১৫৮৪ খৃস্টাব্দে সম্রাট আকবার হিজরি সৌর বর্ষপঞ্জীর প্রচলন করেন।

তবে তিনি ঊনত্রিশ বছর পূর্বে তার সিংহাসন আরোহনের বছর থেকে এ পঞ্জিকা প্রচলনের নির্দেশ দেন।  এজন্য ৯৬৩ হিজরি সাল থেকে বঙ্গাব্দ গণনা শুরু হয়।

ইতঃপূর্বে বঙ্গে প্রচলিত শকাব্দ বা শক বর্ষপঞ্চির প্রথম মাস ছিল চৈত্র মাস।  কিন্তু ৯৬৩ হিজরি সালের মুহাররাম মাস ছিল বাংলা বৈশাখ মাস, এজন্য বৈশাখ মাসকেই বঙ্গাব্দ বা বাংলা বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস এবং ১লা বৈশাখকে নববর্ষ ধরা হয়।

পয়লা বৈশাখ বা পহেলা বৈশাখ (বাংলা পঞ্জিকার প্রথম মাস বৈশাখের ১ তারিখ) বাংলা সনের প্রথম দিন, তথা বাংলা নববর্ষ। আধুনিক বা প্রাচীন যে কোন পঞ্জিকাতেই এই বিষয়ে মিল রয়েছে। বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৪ই এপ্রিল এই উৎসব পালিত হয়।  বাংলা একাডেমি কর্তৃক নির্ধারিত আধুনিক পঞ্জিকা অনুসারে এই দিন নির্দিষ্ট করা হয়েছে।

বাংলা দিনপঞ্জীর সঙ্গে হিজরী ও খ্রিস্টীয় সনের মৌলিক পার্থক্য হলো হিজরী সন চাঁদের হিসাবে এবং খ্রিস্টীয় সন ঘড়ির হিসাবে চলে। এ কারণে হিজরি সনে নতুন তারিখ শুরু হয় সন্ধ্যায় নতুন চাঁদের আগমণে। ইংরেজি দিন শুর হয় মধ্যরাতে। পয়লা বৈশাখ রাত ১২টা থেকে শুরু নাকি সূর্যোদয় থেকে শুরু এটা নিয়ে অনেকের দ্বিধাদ্বন্দ্ব আছে।

ঐতিহ্যগতভাবে সূর্যোদয় থেকে বাংলা দিন গণনার রীতি থাকলেও ১৪০২ সালের ১ বৈশাখ থেকে বাংলা একাডেমি এই নিয়ম বাতিল করে আন্তর্জাতিক রীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে রাত ১২টায় দিন গণনা শুরুর নিয়ম চালু করে।