রাবির চারুকলায় চলছে বর্ষবরণের ব্যাপক প্রস্তুতি

0
78

rabiআর মাত্র একদিন পরই পহেলা বৈশাখ। বাঙালি ঐতিহ্যকে ধারণ করে বাংলা নববর্ষ ১৪২১কে স্বাগত জানাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্যাম্পাসে চলছে বর্ষবরণের ব্যাপক প্রস্তুতি।

বৈশাখের প্রথম দিনটি গানে-বাদ্যে আর উৎসব আমেজে মেতে ওঠা বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য। এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজনে নিরলস পরিশ্রম করছেন রাবির চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এজন্য নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে তারা।

বাংলা বছরের প্রথম দিনে রাবি সাজে ভিন্ন সাজে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী আর জনসাধারণে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসে পয়লা বৈশাখের মূল আয়োজন থাকে চারুকলা বিভাগে। নতুন বর্ষবরণের অন্যতম আয়োজন চারুকলার মঙ্গল শোভাযাত্রা। শিক্ষক শিক্ষার্থীরা দলে দলে যোগ দেয় এই শোভাযাত্রায়। আর এ  শোভাযাত্রার বিশেষত্ব হলো প্রতিবছর সমসাময়িক বিষয়ে নতুন কিছুকে ফুটিয়ে তোলা।

মঙ্গল শোভাযাত্রা সার্থক করে তুলতে চারুকলাজুড়েই চলছে জোর প্রস্তুতি। চারুকলার ছাত্রছাত্রীরা তাদের ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে দিন-রাত কাজ করছেন। শিক্ষকদের সরাসরি তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীদের মঙ্গল শোভাযাত্রা তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে গিয়ে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের দারুণ ব্যস্ততা। নানারকম ছবি আঁকছেন তারা। কেউবা ডামি তৈরিতে ব্যস্ত।  মূলত চারুকলার এই আয়োজনটিকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হয়ে থাকে রাবির বৈশাখ বরণের কার্যক্রম। এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় হাতিকে প্রাধান্য দিয়েই কাজ করছেন চারুকলা বিভাগ।

পহেলা বৈশাখের প্রস্তুতি সর্ম্পকে চারুকলা বিভাগরে শিক্ষার্থী আসমাউল হোসেন মিলন বলেন, এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় হাতিকে প্রাধান্য দেওয়া হলেও বরাবরের মতো বাংলা সংস্কৃতির সবকিছুই থাকবে আয়োজনে। পুতুল, মুখোশসহ নানা ধরনের শিল্পকর্ম পহেলা বৈশাখ ১৪২১-কে অনেক বেশি সমৃদ্ধ করে তুলবে বলে মনে করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আবদুর মতিন তালুকদার বলেন, কয়েকজন শিক্ষকের সরাসরি তত্ত্বাবধানে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী পয়লা বৈশাখ উদযাপন সফল করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

কেএফ/এআর