দেশজুড়ে এক লাখের বেশি ওয়াই-ফাই হটস্পট তৈরি করবে সরকার

0
76

wifiপ্রত্যন্ত অঞ্চলে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে দেশজুড়ে এক লাখের বেশি ওয়াই-ফাই হটস্পট তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ইউনিয়ন পর্যায়ের হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, লঞ্চঘাট, বাস স্টেশনসহ বিভিন্ন স্থানে এসব হটস্পট তৈরি করা হবে। শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এক কর্মশালায় বক্তৃতা প্রদানকালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এ কথা জানান।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘ইনফো সরকার-৩: কী চাই’ শীর্ষক ওই কর্মশালার আয়োজন করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। আরো বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোস্তফা কামাল উদ্দিন, বেসিস সভাপতি শামীম আহসান। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের পরিচালক ইকবাল মাহমুদ।

কর্মশালায় প্রতিমন্ত্রী জানান ‘ডেভেলপমেন্ট অফ ন্যাশনাল আইসিটি ইনফ্রা-নেটওয়ার্ক ফর বাংলাদেশ গভর্মেন্ট ফেজ-৩ প্রকল্পের আওতায় এইসব ওয়াইফাই হটস্পট তৈরি করা হবে। এছাড়াও ওই প্রকল্পের আওতায় সাড়ে তিন হাজার উপজেলায় অপটিক্যাল ফাইবার, ২৫ হাজার আইপি ফোন এবং সাড়ে চার হাজার বায়োমেট্রিক ডাটা সেন্টার স্থাপন করা হবে।

তিনি বলেন, দেশের মোট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১ লাখ ৩০ হাজার। এছাড়া ইউনিয়ন পর্যায়ে বাস স্টপ, লঞ্চঘাট আছে। এছাড়া ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র আছে। এসব জায়গায় ওয়াইফাই হটস্পট করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, অনেকে হয়তো বলবেন এটা কঠিন কাজ। আমি মনে করি সেটা মোটেও কঠিন বা অসম্ভব নয়।

ইনফো সরকার-৩ প্রকল্পের জন্য ইতোমধ্যেই ১৬ কোটি মার্কিন ডলারের প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া সরকারি মোবাইল অপারেটর কোম্পানি টেলিটকের কাছেও ওয়াইফাই স্পট করার প্রস্তাব করা হয়েছে বলেও জানান পলক।

মন্ত্রী পলক বলেন, সরকারি যেসব অফিসে ইন্টারনেট সংযোগ আছে, সেখানে যদি রাউটার বসানো হয় তবে ওই অফিসে আসা লোকজনকে নেটওয়ার্কের আওতায় আনা যাবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীর উত্তরা থেকে মতিঝিল রুটে চলবে বিআরটিসির এমন ২০টি বাস ওয়াই-ফাই চালু করেছে সরকার। এসব বাসে অবস্থানকালে যাত্রীরা বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

ডেভেলপমেন্ট অব ন্যাশনাল আইসিটি ইনফ্রা-নেটওয়ার্ক ফর বাংলাদেশ ফেজ-৩ প্রকল্পের উপর আয়োজিত ওই কর্মশালায় সরকারি কর্মকর্তাদেরফ উদ্দেশ্যে মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী বলেন, শেখ হাসিনার প্রচারের জন্য আওয়ামী লীগের কর্মী আছে। তারা জনগণের কাছে শেখ হাসিনার প্রচার করবে। আপনাদের এটা করার দরকার নাই।”

অনুষ্ঠানে আয়োজকদের দেয়া একটি কাগজ হাতে নিয়ে মন্ত্রী বলেন, এখানে লেখা আছে, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে…। উনি যোগ্য না অযোগ্য সেটা জনগণ বিচার করবে। আপনারা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করুন। এজন্য আপনাদের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয়।