রাজশাহীর ইলিশের বাজারে বৈশাখী উত্তাপ

0
76
elish

elishআর একদিন পরই পহেলা বৈশাখ। বাঙালীর প্রাণের উৎসব বাংলা বর্ষবরণে পান্তা-ইলিশ নামটি যেন এক সূত্রে গাঁথা।

এদিন পান্তার সঙ্গে এক টুকরা ইলিশ না হলে যেন চলেই না। তাই এই উৎসবকে ঘিরে রাজশাহীর ইলিশের বাজারে এখন উত্তাপ ছড়াচ্ছে ।

পহেলা বৈশাখকে ঘিরে রাজশাহীর বাজারে ইলিশের দাম এখন আকাশ ছোঁয়া। দাম শুনে ইলিশ না কিনেই ফিরেছেন অনেকে। তাইতো বাধ্য হয়ে অনেকেই বর্ষবরণের খাবারের তালিকা থেকে বাদ দিচ্ছেন পছন্দের ইলিশ।

শনিবার রাজশাহীর বিভিন্ন বাজারে ছোট আকারের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকায়। আর জাটকা বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকায়।

নগরীর নিউমার্কেট ও সাহেব বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মাত্র ২৫০ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকা দরে। ৩৫০ গ্রামের ইলিশের দাম ৩৫০ টাকা। অপেক্ষাকৃত বড় ইলিশ (৫০০ গ্রাম) বিক্রি হচ্ছে ৭০০ থেকে ১০০০ টাকায়। খুচরা বাজারে একদিনের ব্যবধানে ইলিশ ভেদে দাম বেড়েছে ১০০ থেকে ২৫০ টাকা প্রতি কেজিতে।

সাহেব বাজারের পাইকারী ইলিশ বিক্রেতা সিরাজুল ইসলামের দাবি, এবার ইলিশের দাম তুলনামূলক কম। কিন্তু ক্রেতা নেই। একই বাজারের খুচরা মাছ ব্যবসায়ী জহিরুল ইসলাম জানান, আগে থেকেই কিনে রাখায় কিংবা আর্থিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় বাজারে এবার ইলিশের ক্রেতারা আসছেন না। আবার দাম শুনে অনেকেই ফিরে যাচ্ছেন। ফলে বিক্রিও তেমন নেই।

বাজারে ইলিশ কিনতে আসা গৃহবধূ নওরোজ জাহান জানান, পহেলা বৈশাখের কারণে দফায় দফায় ইলিশের দাম বেড়েছে। তাই অনেকেই  ইলিশ কিনতে পরছেন না।

নগরীর ইলিশের খুচরা বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায়- ৩৫০ থেকে ৪০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৪০০ টাকা, ৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম ৫০০ টাকা, ৬০০ থেকে ৭০০ গ্রাম ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা, ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কেএফ