ধানমন্ডি মাঠ সবার জন্য উন্মুক্ত রাখার দাবি’

0
73

Dhanmondi_fieldধানমন্ডি খেলার মাঠ সবার জন্য উন্মুক্ত রাখার দাবি জানিয়েছেন পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা। শুক্রবার ধানমন্ডি খেলার মাঠের সামনে ‘অবিলম্বে হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়ন করে ধানমন্ডি মাঠ সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করার দাবিতে’ আয়োজিত এক নাগরিক সমাবেশে বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট (আইএবি), বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), গ্রীণ ভয়েস, সবুজ পাতা, নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন, ডব্লিউবিবি ট্রাস্ট, ঢাকা যুব ফাউন্ডেশন, আদি ঢাকাবাসী ফোরাম, বাংলাদেশ এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন, পরিবর্তন চাই, আইন ও সালিস কেন্দ্র, সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ, সুজন, ব্লু প্ল্যানেট ইনিশিয়াটিভ, সিটিজেন রাইটস মুভমেন্ট, ডক্টরস ফর হেলথ এন্ড এনভায়রনমেন্ট (ডেন), ছাত্র ইউনিয়নসহ ৫০ টির অধিক পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠন এই সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন।

সমাবেশে অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, আদালতের নির্দেশনা বরখেলাপ করে কিভাবে একটি মহল মাঠটি দখল করে রেখেছে তা আজ আমাদের কাছে বড় প্রশ্ন। তিনি জনস্বার্থবিরোধী এই ধরনের কার্যক্রম বন্ধ করতে এবং জনগণের মাঠ জনগণকে ফিরিয়ে দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান।

মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেত বলেন, অতীতে আমরা ভূমিদস্যু দেখেছি, চর-নদী-জলাধার দখলদার দেখেছি। আজ শুরু হয়েছে মাঠ দখলদার। শিশু-কিশোরদের  তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করে ধানমন্ডি মাঠটি এই মহল তাদের প্রয়োজনে দখল করে রেখেছে। আমাদের সকলের চোখের সামনে এমন একটি অন্যায় কাজ আমরা মেনে নিতে পারি না। শিশু-কিশোরসহ সাধারণ মানুষের এই প্রিয় মাঠটিকে ফিরিয়ে দিতে তিনি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান।

অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, কোন ক্লাব বা ব্যক্তি স্বার্থে ধানমন্ডি মাঠ নয়। এই মাঠ জনগনের স্বার্থে। অনতিবিলম্বে মাঠের ভিতরে সকল নির্মাণ কাজ বন্ধ করে মাঠটি উন্মুক্ত করে দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানান তিনি।

সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেন, পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠনের সাথে মাঠ রক্ষায় এলাকাবাসীও আজ সোচ্চার। আমরা আশাবাদী জনগনের মাঠ জনগণ অবশ্যই ফিরে পাবে।

খুশী কবির জনগনের অধিকার ও সম্মত্তি ফিরিয়ে আনতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।

স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, ধানমন্ডি মাঠকে বিনষ্ট করে এলাকাবাসীর অধিকার ও সম্পদ কেড়ে নেওয়ার পায়তারা আমরা মেনে নিতে পারি না।

বাপার জাতীয় পরিষদ সদস্য ও আইএবি’র সাবেক সভাপতি মোবাশ্বের হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- বাপার প্রাক্তন সভাপতি অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী, সিইউএস’র সভাপতি ও বাপার সহ-সভাপতি অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, নারীনেত্রী খুশী কবির, আইএবি-র সভাপতি আবু সাঈদ এম আহমেদ, বিআইপি’র সভাপতি অধ্যাপক গোলাম রহমান, বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, সাবেক জাতীয় দলের ক্রিকেটার গাজী আশরাফ হোসেন লিপু, জাবেদ ওমর বেলিম ও মো. আশরাফুল প্রমুখ।

জেইউ/এএস