সপ্তাহের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে ৩৪ শতাংশ

0
50
dse index
সূচকের ঊর্ধ্বমুখী ধারা

dse-ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) এক সপ্তাহের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে ৩৪ দশমিক ৩৯ শতাংশ। ডিএসই প্রধান সূচক কমেছে। তবে ডিএসইএস এবং ডিএস৩০ সূচক বেড়েছে আগের সপ্তাহের তুলনায়।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, গত সপ্তাহে ৬ কোম্পানির লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে । লভ্যাংশ ঘোষণায় বেশ কয়েকটি কোম্পানির শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়ে যায়। এছাড়া গত সপ্তাহে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর লেনদেন ভালো হয়েছে। সেকারণেই সার্বিক বাজারে লেনদেন বেড়েছে। তবে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ কোম্পানির দাম কমেছে সেকারণে ডিএসই প্রধান সূচক কমে গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৬৫২ কোটি ৯৩ লাখ টাকার। গত সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে দুই হাজার ৫৫১ কোটি ৭১ লাখ ৫৪ হাজার ৭০০ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৮৯৮ কোটি ৭৭ লাখ ৬০ হাজার ৬৯২ টাকার।

এর মধ্যে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন ছিল ৮৬ দশমিক ৪২ শতাংশ, ‘বি’ ক্যটাগরির লেনদেন ছিল ১ দশমিক ৬৯ শতাংশ, ‘এন’ ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ২ দশমিক ৭২ শতাংশ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ৯ দশমিক ১৮ শতাংশ।

ডিএসই প্রধান সূচক বা ডিএসইএক্স সূচক কমেছে দশমিক ৬২ শতাংশ বা ২৮ দশমিক ৪৯ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে এই সূচক ৪ হাজার ৬২১ পয়েন্ট থেকে নেমে ৪ হাজার ৫৯২ পয়েন্টে অবস্থান করে।

গত সপ্তাহে ডিএস৩০ সূচক বেড়েছে ৩৩ শতাংশ বা ৫ দশমিক ৪৮ পয়েন্ট। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচকের অবস্থান ছিল ১ হাজার ৬৭০ পয়েন্টে। আর সপ্তাহের শেষ দিনে এই সূচক অবস্থান করে ১ হাজার ৬৭৫ পয়েন্টে।

অপরদিকে শরীয়াহ সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ১৭ শতাংশ বা ১১ দশমিক ৭৫ পয়েন্ট। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচকের অবস্থান ছিল এক হাজার ৮ পয়েন্ট। আর সপ্তাহের শেষে এই সূচক দাঁড়ায় ১ হাজার ২০ পয়েন্টে।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩০৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৫৭টির কমেছে ২৩১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৩টির। আর লেনদেন হয়নি ৩টি কোম্পানির।

অর্থসূচক/এমআরবি/