ট্যাক্সিক্যাব ও বড়বাসে যৌক্তিক ভাড়া চালুর দাবি

0
60
taxi

taxiরাজধানীতে জনদুর্ভোগ লাঘবে যৌক্তিক ভাড়ায় পর্যাপ্ত সংখ্যক ট্যাক্সিক্যাব ও বড়বাস চালুর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী অধিকার কল্যাণ পরিষদসহ পাঁচটি সংগঠন।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ যাত্রী অধিকার কল্যাণ পরিষদ, নৌ-সড়ক-রেলখাত রক্ষা জাতীয় কমিটি, সিটিজেন রাইটস মুভমেন্ট, গ্রিন ক্লাব অব বাংলাদেশ (জিসিবি)ও পরিবেশ সম্মত বাসযোগ্য ঢাকা বাস্তবায়ন পরিষদ আয়োজিত মানবন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে প্রধান বক্তা হিসেবে পরিবহন শ্রমিক নেতা মনজুরুল আহসান খান বলেন, সড়ক পরিবহন সেক্টরে চরম বিশৃঙ্খলা নৈরাজ্যকর অবস্থা বিরাজ করছে। যাত্রী সেবা বলতে এখন আর কিছুই নেই। আছে শুধু যাত্রী হয়রানি।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, সরকারের পৃষ্টপোষকতায় এক শ্রেণির সুবিধাভোগীরা যাত্রীদের জিম্মি করে মুনাফা লুটছে।  এদের থেকে জনগণকে মুক্তির উপায় খুঁজে বের করতে হবে।

পরিবেশবিদ প্রকৌশলী ইনামুল হক বলেন, রাজধানীর যানজট ও যানবাহন সংকট নিরসনে নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে। সেই সাথে প্রাইভেটকারের চলাচলের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ এবং ঢাকাসহ সারাদেশে আরও বেশি বড় বাস চালু করার দাবি জানান তিনি।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, যাত্রী সুবিধার দোহাই দিয়ে সরকার রাজধানীতে যে ৫০০টি নতুন ট্যাক্সিক্যাব নামাচ্ছে তাতে ভৌতিক ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় নব্য ধনীরা পেশি শক্তির জোরে সাধারণ যাত্রীদের জিম্মি করে অঢেল মুনাফা লুফে নিচ্ছে। একটি বিশেষ মহলকে অধিক লাভবান করার উদ্দেশ্য প্রথম এক কিলোমিটারের নূন্যতম ভাড়া ১০০ টাকা ধরা হয়েছে।

সরকারের এ সিদ্ধান্তকে গণবিরোধী আখ্যা দিয়ে ভাড়া পন:নির্ধারণ ও যোক্তিক ভাড়ায় পর্যাপ্ত ট্যাক্সিক্যাব নামানোর দাবি জানান তারা।

নৌ, সড়ক ও রেলখাত রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক আশিষ কুমার দে এর সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন- পরিবেশ বাংলাদেশ যাত্রী অধিকার কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান আরিফ, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, পরিবেশ সম্মত বাসযোগ্য ঢাকা বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য সচিব হাজী মোহাম্মদ শহীদ প্রমুখ।

জেইউ/কেএফ