‘শিল্পায়নের জন্য লজিস্টিক সহায়তা বাড়াতে হবে’

0
81
Pan Pacific 2

Pan Pacific 2স্বাধীনতার পর থেকে এ পর্যন্ত দেশের শিল্পের অনেক উন্নয় হয়েছে। তবে এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হলে শিল্পায়নের জন্য লজিস্টিক সহায়তা বাড়াতে হবে। এছাড়া মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ ও গ্যাস, দক্ষ মানবশক্তি এবং আবকাঠামোগত উন্নয়নকে তরান্বিত করতে হবে। সিপিডির অতিরিক্ত পরিচালক ড খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেমের এক গবেষণায় এসব বিষয় উঠে আসে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে ‘আগামি দশকের জন্য শিল্পায়নের কৌশল’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ গবেষণা প্রবন্ধটি তুলে ধরেন। শিল্প মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ চেম্বার আব কমার্স যৌথভাবে এ সভাটির আয়োজন করেন।

প্রবন্ধটিতে গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, দেশের কলকারখানার উন্নয়নের জন্য লজিস্টিক সহায়তা বাড়াতে হবে। এ খাতের উন্নয়নের জন্য বেসরকারি উদ্যোক্তারা নিজেরাই চেষ্টা করে যাচ্ছে। তবে সরকারি ভূমিকা খুবই কম বলে জানান তিনি।

আগামি দিনে মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার জন্য বেসরকারি খাত গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখবে। তবে এর জন্য দরকার মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ ও গ্যাসের। তার পাশাপাশি দক্ষতা সম্পন্ন শ্রমিক গড়ে তুলতে হবে।

দেশে দক্ষ মানবশক্তির অভাব রয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ৪০ শতাংশ শ্রমিকের এখনও পর্যন্ত কোনো শিক্ষা নেই।

এসএমই খাতের জন্য একটি মন্ত্রণালয় করা যেতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রবন্ধটিতে তিনি আরও তুলে ধরেন, শিল্পকারকখানার আবকাঠামোতে স্বল্পতা রয়ে গেছে। দেশের ইপিজেড এবং বিসিকের কার্যক্রম পর্যাপ্ত নয়। এজন্য আইসিটি পার্ক ও লেদার পল্লীসহ প্রভৃতি জোন গড়ে তুলতে হবে।

প্রবন্ধতিতে উঠে আসে, দেশের ইন্ডাস্ট্রি বিগত ৪০ বছরে অনেক দূর এগিয়েছে। তবে তা কতিপয় আমদানি নির্ভর এবং স্থানীয় বাজার ভিত্তিক। এ ধারা থেকে আমাদের শিল্প ব্যবস্থাকে বেরিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এসএমই খাতের জন্য একটি আলাদা মন্ত্রণালয় করা যায় কিনা তা এখনই আমাদের ভেবে দেখতে হবে।

এনার্জি রেগুলেটরির (বিইএরসি) চেয়ারম্যান এ আর খান বলেন, জ্বালানি ছাড়া কোনো শিল্পায়ন সম্ভব নয়। আমাদের মজুদ গ্যাস আগামি ১০ বছর পর্যন্ত থাকবে। তাই বিকল্প জ্বালানি উৎস খুঁজতে হবে।

তিনি জ্বালানি শক্তি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান।

এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের দেশের জ্বালানিতে সোলারের ব্যবহার বাড়াতে হবে। তবে তার জন্য উন্নত মানের সোলারের নিশ্চয়তা প্রদান করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী, বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এ কে আজাদসহ  বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা।

এইচকেবি/এআর