ঘরেই তৈরি করুন রসের জিলিপি

0
432

jilipiআসছে বৈশাখ। পয়লা বৈশাখে নতুন বছর বরণের নানা আয়োজন চারিদিকে। বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নেওয়ার নানা আয়োজনে ব্যস্ত চারপাশ। ঐতিহ্যগত ভাবে বর্ষবরণের অন্যতম উপাদান মিষ্টি। আর যারা গ্রামীণ সংস্কৃতির সাথে পরিচিত, নিত্য যাদের গ্রামের কথা মনে বাজে তারা বোধহয় জিলিপি ছাড়া বর্ষবরণের কথা ভাবতেই পারেন না।

কিন্তু নাগরির জীবনে বাংলার মুখরোচক এ খাবারটি দেখা মেলাই ভার। যাও দেখা যায় তাও আবার দামে-মানে পছন্দসই হয় না অনেকের কাছে।

তাই এবার বৈশাখে ঐতিহ্যবাহী এ খাবারটি আপনি নিজেই ঘরে তৈরির প্রস্তুতি নিন। অর্থসূচকের আজকের আয়োজনে আপনাদের জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে কেমন করে ঘরেই তৈরি করবেন জিলিপী-

প্রয়োজনীয় উপকরনঃ

এক কেজি সাদা আটা, ১০০ গ্রাম রেশন,  পরিমাণমত পানি, তেল এবং চিনি।

প্রনালীঃ

১. পরিমান মত আটা এবং বেশন ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার ওই মিশ্রণে  পানি দিতে থাকুন। যতো ভালো করে মিশিয়ে এই তরল বানাবেন জিলাপী ততই  ভালো হবে। তবে খেয়াল রাখুন তরলটা যেন গাঢ় হয়।

২. এদিকে এভাবে কাই বানিয়ে রেখে অন্য একটা বড় হাড়িতে চিনির সিরা বানাতে হবে। পানিতে চিনি দিয়ে ভালো করে গুলে চুলায় গরম করতে হবে এবং বার বার নাড়িয়ে চিনির সিরা গাঢ় করে নিতে হবে। এই তরল সিরাও না বেশি গাঢ় না বেশী তরল হবে। সিরা হয়ে গেলে পাশে রেখে ঠাণ্ডা করে নিন। জিলাপী ভেজে পরে এই ঠাণ্ডা সিরায় রাখা হবে।

৩. কাই বা তরল হয়ে গেলে চুলায় তেল গরম করতে থাকুন। বিশেষ ভাবে শক্ত কাপড়ের চার কোণার একটা কাপড় লাগে। এই চার কোণার কাপড় টার মাঝে একটা ফুটো আছে, এই ফুটোর সাইজেই জিলাপীর ডায়া হয়ে থাকে । একটা বোলে এই কাপড়টা রেখে তাতে কাই ঢেলে নিতে হবে।

৪. এবং গরম তেলে এভাবে কাপড়ে রাখা কাই বা তরল ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে পেঁচিয়ে দিতে হবে। এবার এক পাশ হয়ে গেলে অন্য পাশ উল্টে দিন।

৫. ভাজা হয়ে গেলে মানে সোনালী রঙ এসে গেলে তুলে চিনির সিরায় রাখুন। উঠানোর সময় জোড়া লেগে থাকা জিলাপী গুলো সাইজ মত ভেঙ্গে দিন এবং সেভাবে তুলে নিন।

৬. ঠান্ডা চিনির সিরায় মিনিট ২/৩ ভিজিয়ে রাখুন, কিছুতেই এর বেশী সময় নয়। বেশি সময় রাখলে জিলাপী নরম (ওদানো) হয়ে যেতে পারে।

৭. এবার সরাসরি জিলাপী গুলো তুলে রাখার স্থানে রাখুন। গরম জিলাপীতে হাত দিতে সাবধান, গরম জিলাপী খেতেও সাবধান।