লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলাকে স্বীকৃতি দিল গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস

0
106
janata

janataলাখো কণ্ঠে সোনার বাংলাকে স্বীকৃতি দিল গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস। বুধবার বিকেলে এই স্বীকৃতির কথা জানানো হয় গিনেসের ওয়েবসাইটে। ‘সবচেয়ে বেশি মানুষের অংশগ্রহণে জাতীয় সংগীত গাওয়ার নতুন রেকর্ড’ এই শিরোনামে দেওয়া ঘোষণায় বলা হয়েছে- লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা জাতীয় সংগীত এক সঙ্গে ২ লাখ ৫৪ হাজার ৫৩৭ অংশগ্রহণকারী গেয়ে রেকর্ড তৈরি করে।

এর আগে ২৬ মার্চ ১১টা ২০ মিনিটে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড স্কোয়ারডে এ সঙ্গীত গাওয়া হয়। এই কর্মসূচিতে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ খান, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন, সরকারের মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য, সশস্ত্র বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সব ধরনের শ্রেণি-পেশার মানুষ।

জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মিলিয়ে ইতিহাসের অংশ হতে সেদিন সকাল থেকে জাতীয় প্যারেড ময়দানে লাখো মানুষের ঢল নামে।

জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার আগে সমবেত জনতার উদ্দেশে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। এমন সুন্দর ও অভূতপূর্ব একটি কর্মসূচি বাস্তাবায়ন করার জন্য আয়োজকপক্ষসহ উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

এদিকে, সকাল সাড়ে ৬টায় প্যারেড মাঠের ফটক খুলে দেওয়া হয়। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, পোশাক ও পরিবহনসহ বিভিন্ন খাতের কর্মীসহ সব শ্রেণিপেশার মানুষ প্যারেড মাঠে উপস্থিত হতে থাকেন জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মেলাতে।

মাঠের প্রতিটি ফটকেই আগ্রহীদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে গুণে গুণে। শৃঙ্খলা ঠিক রাখতে মাঠের ওই অংশটি ভাগ করা হয়েছে ১৫টি সেক্টরে। অনেকেই মাঠে এসেছেন গায়ে পতাকা জড়িয়ে, মাথায় পতাকার রঙের ব্যান্ডানা পরে।

‘জাতীয় সংগীত গাইব, বিশ্ব রেকর্ড গড়বো’ স্লোগান নিয়ে প্যারেড গ্রাউন্ডে কানায় কানায় ভরে যায়। সবাই এক সঙ্গে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে সৃষ্টি করবে এক অনন্য ইতিহাসের- সবাই এই আনন্দে ভাসছিল। এর আগে কোথাও এত মানুষ একসঙ্গে জাতীয় সঙ্গীত গাইতে একজোট হয়নি।

‘গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লেখানোর প্রত্যয়ে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে এই অনন্য আয়োজনের উদ্যোগ নেয় সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় আর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় রয়েছে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ।

এই বিশাল আয়োজনকে স্বীকৃতি দিতে গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষের মনোনীত প্রতিনিধিরা অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত ছিলেন।

এএস