শেখ মুজিব ৭২-এর অবৈধ প্রধানমন্ত্রী: তারেক

0
86
_tarek

_tarekশেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালে অবৈধভাবে প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন বলে  মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমান। তিনি বলেন, ৭২-এর মতো বর্তমান সরকারের মন্ত্রিসভাও অবৈধ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যুক্তরাজ্য বিএনপির উদ্যোগে লন্ডনের ঐতিহাসিক ওয়েস্ট মিনিস্টার সেন্ট্রাল হলে আয়োজিত এক সুধী সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় তিনি আবারও জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ও স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবি করেন।

আ.লীগের প্রবীণ রাজনীতিবীদ ও বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, সেক্টর কমাণ্ডার কেএম শফিউল্লাহ, সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেনসহ আ.লীগ নেতা ও বুদ্ধিজীবীদের লেখা বই থেকে বিভিন্ন তথ্য ও দলিল উপস্থাপন করে তিনি বলেন, শহীদ জিয়াকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি দাবি করায় অনেকে ক্ষিপ্ত।  তবে একথা সত্য যে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। তার প্রমাণ আ.লীগের রাজনীতিবিদ এবং বুদ্ধিজীবীদের বক্তব্য ও তাদের লেখা বইতেও রয়েছে।

রাজনীতি করতে চাইলে ইতিহাস জানতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তার নেতা-কর্মীরা কেবল ইতিহাসের এ সত্যকে নিয়ে সমালোচনা করছে। অথচ এখনো পর্যন্ত তাদের কথার স্বপক্ষে কোনো সঠিক তথ্য বা প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেননি।

শেখ মুজিবুর রহমানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তাজউদ্দিন আহমদ শেখ মুজিবুর রহমানকে ৭ মার্চের আগে স্বাধীনতার একটি ঘোষণাপত্র পাঠের কথা বলেছিলেন। কিন্তু তিনি তা ঘোষণায় অস্বীকৃতি জানান। এছাড়া, ৭ মার্চের আগে ফ্রান্স টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন তিনি দেশের স্বাধীনতা চান না, তিনি স্বায়ত্তশাসন চান।

এ সময় তিনি প্রজেক্টরের মাধ্যমে ফ্রান্স টিভিকে দেওয়া সাক্ষাতকারের ভিডিওটি সমাবেশে প্রর্দশন করেন। একই সাথে জিয়াউর রহমানের প্রথম প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপক্ষে দেশি-বিদেশি ঐতিহাসিক, রাজনীতিবিদ ও লেখকদের বিভিন্ন প্রামাণ্য দলিল সমাবেশে উপস্থাপন করেন।

সমাবেশে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি কায়সার আহমদের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মাহিদুর রহমান, আয়েশা চৌধুরী, ডেপুটি মেয়র অহিদ আহমদ, ডা: ফিরোজ মাহবুব কামাল, মাওলানা শামসুল হক, ব্যারিস্টার আনোয়ার বাবুল প্রমুখ।

এমআর/কেএফ