কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের পর জয়পুরহাটে জামায়াত-শিবিরের তান্ডব
বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজশাহী

কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের পর জয়পুরহাটে জামায়াত-শিবিরের তান্ডব

jaypurhatকাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকরের পর বৃহস্পতিবার রাতে জয়পুরহাট ও পাঁচবিবিতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুরসহ অগ্নিসংযোগ ও লুট করেছে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা।

রাত ১১টার পর জয়পুরহাট জেলা শহরের বাইরে সদর উপজেলা ও পাঁচবিবি উপজেলার বিভিন্ন সড়কে গাছ ফেলে ও সড়কে গর্ত করে সড়ক অবরোধ করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। এছাড়া জয়পুরহাট-নওগাঁ সড়কের তেঁতুলতলি ব্রিজ সংলগ্ন সড়ক ও হিচমি বাইপাস সড়ক কেটে ফেলায় ওই সব সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে সড়ক যোগাযোগ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের পর রাতেই পুরানাপৈল ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি বড় তাজপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম ও তার বড় ভাই রেজাউল ইসলামের বাড়িতে আগুন দেয় জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। এছাড়া হিচমি বাজারের ব্যবসায়ী আমান উল্লাহর বাড়িতে ৪০/৫০জন জামায়াত-শিবির কর্মী হামলা করে। তারা বেশ কয়েকটি ককটেলেরও বিস্ফোরণ ঘটায়। পরে তারা দেয়াল ভেঙ্গে গ্যারেজে থাকা একটি মাইক্রোবাস ও তার হ্যাচারীতে আগুন দেয়। এতে মাইক্রোবাসটি পুরোপুরি  ভস্মিভূত হয় ও হ্যাচারীটি  আংশিক পুড়ে যায়।

আমান উল্লাহর ছেলে রাব্বু হোসেন দাবি করেন, সশস্ত্র অবস্থায় জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাসা লক্ষ্য করে ৮/১০টি ককটেল নিক্ষেপ করে। পরে তারা মাইক্রোবাস ও হ্যাচারীতে আগুন দেয়। একই রাতে জেলার পাঁচবিবি উপজেলার বিনধারা গ্রামের পাপ্পু চৌধুরীর বাড়ি, বারোকান্দি বাজারের জুয়েলের মুদি দোকান,বেড়াখাই বাজারের বাবুলের মুদি দোকান পুড়ে দেয়। মাকুল গ্রামের গোলাম মোস্তফা এবং তেলিহার গ্রামের বাবুর বাড়িও ভাঙচুর করেছে জামায়াত-শিবির ক্যাডাররা

এই বিভাগের আরো সংবাদ