অর্থপাচারে খন্দকার মোশাররফের স্ত্রীর সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে

0
72
দুদক

দুদকযুক্তরাজ্যে অর্থপাচারে খন্দকার মোশাররফ হোসেনের স্ত্রী বিলকিস আক্তারের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার দুপুরে সেগুনবাগিচার কার্যালয়ে বিলকিস আক্তারের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান দুদক উপ পরিচালক আহসান আলী।

আহসান আলী বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদে বিলকিস আক্তারের ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে আরো প্রমাণ পেলে মামলায় তাকেও আসামি করা হবে।’

এর আগে, মঙ্গলবার সকালে সেগুনবাগিচার দুদক কার্যালয়ে হাজির হন বিলকিস আক্তার। সকাল ১০ টার দিকে বিলকিস আক্তারের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। জিজ্ঞাসাবাদ চলে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত।

উল্লেখ্য, দুদকের দায়ের করা এ অর্থপাচার মামলায় বিলকিস আক্তারের স্বামী বিএনপি নেতা মোশাররফ হোসেনকে গত ১৩ মার্চ গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে, গত ৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর রমনা থানায় বিদেশে প্রায় ১০ কোটি টাকা পাচারের দায়ে মামলা দায়ের করে দুদক।

মামলার এজাহারে বলা হয়, খন্দকার মোশাররফ বিভিন্ন সময়ে ৯ কোটি ৫৩ লাখ ৯৪ হাজার ৩৮১ টাকা বিদেশে পাচার করেছেন। এছাড়া তিনি মন্ত্রী থাকাকালীন ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিংয়ের মাধ্যমে অবৈধভাবে অর্জিত বৈদেশিক মুদ্রা গোপন করে দেশে বিদ্যমান আইন লঙ্ঘন করেছেন। তিনি ও তার স্ত্রী মিসেস বিলকিস আক্তার হোসেনের যৌথ নামে যুক্তরাজ্যে ৮ লাখ ৪ হাজার ১৪২.৪৩ ব্রিটিশ পাউন্ড (হিসাব নং-১০৮৪৯২) জমা করেন, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৯ কোটি ৫৩ লাখ ৯৫ হাজার ৩৮১ টাকা।

এজাহারে আরও বলা হয়,  বৈদেশিক মুদ্রায় হিসাব খোলার বিষয়ে খন্দকার মোশাররফ বা তার স্ত্রী বিলকিস কেউই বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছ থেকে কোনো অনুমোদন নেননি।

২০০৮ সালে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে রমনা থানায় জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করে তত্কালীন দুদক কর্তৃপক্ষ। সেটির অভিযোগপত্র গত বছরের ২৪ মার্চ আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে বলে এজাহারে উল্লেখ রয়েছে।