ছাত্রলীগের ধর্মঘটে অচল রাবি

0
90
rabi-logo
রাবি লোগো

rabi-logoরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রলীগ নেতা রুস্তম আলী আকন্দ হত্যায় জড়িতদের ও রাবি ছাত্রশিবিরের সভাপতিকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ছাত্রলীগের ধর্মঘট তৃতীয় দিনের মতো অব্যাহত রয়েছে। টানা ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়েছে ক্যাম্পাস। ধর্মঘটের কারণে তৃতীয় দিনের মতো বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগের ক্লাশ-পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় বক্তব্য রাখেন রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা ও সাধারণ সম্পাদক এসএম তৌহিদ আল হোসেন তুহিন। বক্তারা অবিলম্বে রুস্তম হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার দাবি করেন। শিবির সভাপতি গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থগারের সামনে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে অবস্থান কর্মসূচি থেকে।

রাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ আল হোসেন তুহিন বলেন, আমাদের সর্বাত্মক ধর্মঘট চলছে। সাধারণ শিক্ষার্থীরা স্বতস্ফূর্তভাবে আমাদের কর্মসূচিতে একাত্মতা জানিয়েছে। রুস্তম হত্যায় জড়িত সবাইকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করা না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তারিকুল হাসান জানান, অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে সকাল থেকে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে সচলাবস্থা ফিরিয়ে আনতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানান তিনি।

রাষ্টবিজ্ঞান বিভাগের র‌্যালি-মানববন্ধন: রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী রুস্তম আলী আকন্দকে হত্যার ঘটনায় শোকর‌্যালি ও মানববন্ধন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ কলাভবনের সামনে থেকে র‌্যালিটি শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সিনেট ভবনে সামনে এসে শেষ হয়। সেখানে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক, বিভাগের শিক্ষক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর আনসার উদ্দিন। মানববন্ধন থেকে মেধাবী শিক্ষার্থী রুস্তম হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। মানবন্ধনে সংহতি জানান রাবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এমআই/সাকি