সংকটের আবর্তে দেশের অর্থনীতি

Economyরাজনৈতিক সংকটের আবর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে দেশের অর্থনীতি। জোট দু’টির সহিংস হানা-হানিতে দেশের মানুষ, অর্থনীতি আজ চরম বিপন্ন। আর এ জন্য শিল্প ও কর্মক্ষেত্রে নেমে এসেছে এক ধরনের স্থবিরতা। অর্থনীতির এ বিপর্যয় থেকে মুক্তির জন্য দুই দলকে সমঝোতার মাধ্যমে সমাধানের আহবান জানিয়েছেন যুব অর্থনীতিবিদ ফোরামের নেতারা।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত ‘বিধ্বস্ত অর্থনীতি, সংকটে জাতি; দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে সকল রাজনৈতিক পক্ষকে সমঝোতায় পৌঁছার আহবান’ শীর্ষক মানববন্ধনে এ আহবান জানান ফোরামের নেতারা।

মানববন্ধনে ফোরামের সভাপতি মির্জা ওয়ালিদ হোসেন বলেন, রাজনৈতিক সহিংসতা আর হানা-হানির কারণে দেশ এখন এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। কোথাও মানুষের জীবনের কোন নিরাপত্তা নেই। সকল জীবিকার পথ আজ বন্ধের উপক্রম। এ অবস্থা চলমান থাকলে সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিলো তা অপূর্ণই থেকে যাবে।

রাজনীতিবিদদের এমন যাতে মানুষের জীবন বিপন্ন হয়, অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে যায় এমন রাজনীতি করা উচিৎ নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, অর্থনীতি ধবংস হলে পুরো দেশই অচল হয়ে যাবে। তাই দেশ ও দেশের জনগণের স্বার্থে সব দলকে সংলাপের মাধ্যমে সমঝোতায় পৌঁছার আহবান জানান সংগঠনের সভাপতি।

ফোরামের উপদেষ্টা মেজর (অবঃ) এম এম মেহবুব রহমান বলেন, দেশের বড় দুই দল গণতন্ত্র রক্ষার নামে গোটা দেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। দেশের প্রতিটি সেক্টর মুখ থুবড়ে পড়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ভারতের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে চরম হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। প্রতিটি পেশার মানুষকে রাস্তায় বসিয়ে দিচ্ছে।

এ সময় দেশের এই নাজুক অবস্থা থেকে পরিত্রানের জন্য সমঝোতার কোন বিকল্প নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সংগঠনের সভাপতি মির্জা ওয়ালিদ হোসানের সভাপতিত্বে মানবন্ধনে আরও বক্তব্য দেন, ফোরামের উপদেষ্টা মেজর (অবঃ) এম এম মেহবুব রহমান, উপদেষ্টা অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. এমতাজ হোসেন, সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন শাহীন, আইনজীবী অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান তপন প্রমুখ।

জেইউ/