একটি প্রাণ বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

0
81

Monirনদীতে ঘর-বাড়ি সব বিলীন হয়ে গেলেও জীবনের কাছে আশাহত হননি কখনো মনির। জীবনের বাঁকে বাঁকে নানা ঘাত-প্রতিঘাত সহ্য করে বেয়ে চলেছেন জীবনের তরী। জীবনের তরী যখন দরিয়ার মাঝ পথে ঠিক তখন কাল বৈশাখী ঝড়ের মত জীবন তরীকে লণ্ড-ভণ্ড করে দিয়েছে ব্রেন টিভি ও ফুসফুসের কঠিন রোগ।

মনির ভোলা থেকে ঢাকায় এসে ফুটপাতে শুরু করেন পুরোনো কাপড়ের ব্যবসা। এই আয়ের ওপর ভর করে তিন ভাইয়ের পড়াশোনা, বাসা ভাড়াসহ সংসারের সব খরচই কোনো রকমে জুটতো।

চরম মন্দা অবস্থার কাছে হার না মানা ২৬ বছর বয়সী এই মনির এখন ৩ মাস ধরে মৃত্যুর সাথে লড়াই করছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিছানায়। তিনি ব্রেন টিবি, ফুসফুসের সংক্রমণসহ জটিল রোগে ভুঁগছেন।

গত ১ এপ্রিল তার অবস্থার হঠাৎ অবনতি হলে তাড়াতাড়ি আইসিইউতে নেওয়ার কথা বলা হয়। ঢাকা মেডিকেলে আইসিইউ’র ব্যাবস্থা না থাকায় ধানমন্ডির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।

পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যাক্তিটির এমন পরিণতি গোটা পরিবারকে চরম বিপদের মধ্যে ফেলে দিয়েছে। সহায় সম্বল যা ছিল তা ইতোমধ্যে চিকিৎসার ব্যায় মেটাতে শেষ হয়ে গেছে। তার দীর্ঘ চিকিৎসা প্রয়োজন। তিনি যেন আবার পরিবারের হাল ধরতে পারেন এমনটাই আশা এখন পরিবার ও শুভানুধ্যায়ীদের। তাই যারা সমাজের বিত্তবান আছেন তারা যদি একটু সহযোগিতার হাত বাড়ান তাহলে বেঁচে যেতে পারে একটি প্রাণ ও একটি পরিবার।

তাকে কেউ সাহায্য করতে চাইলে জনতা ব্যংকের এই সঞ্চয়ী হিসাবের মাধ্যমে (০০০১০২১০১৩৪১৭) অর্থ দিয়ে সাহায্য করতে পারেন।

এসএস/সাকি