আবারও বিশ্ববাজারে খাদ্যের দাম বেড়েছে

0
52

Employee arranges pricetags at vegetables work bench during the opening day of upmarket Italian food hall chain Eataly's flagship store in downtown Milanবিশ্ববাজারে খাদ্যের দাম আবারও বেড়েছে। সম্প্রতি বিশ্ব খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে। জাতিসংঘের অঙ্গ সংস্থাটি বলছে, ২০১৩ সালের মে মাস থেকে এই প্রথম এতো বেশি মূল্যসূচক বেড়েছে।  সংস্থাটির মতে, চলতি বছরের মার্চ মাস শেষে বিশ্বে সামগ্রিক খাদ্য সূচকের বর্তমান অবস্থান ২১২ দশমিক ৮, যা পূর্ববর্তী মাসের তুলনায় প্রায় ৪ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি।

বিশ্ব খাদ্য ও কৃষি সংস্থাটির একজন উর্ধ্বতন কর্মকতা আব্দেল রেজা আব্বাসিয়ান জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল ও কৃষ্ণ সাগরের উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে বৈরী আবহাওয়া ও ইউক্রেন সংকটের কারণ বিশ্বজুড়ে খাদ্যের দাম বেড়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন বাজারে খাদ্য দ্রব্যের দাম তুলনামূলকভাবে বিশ্লেষণ করে প্রতি এক মাস অন্তর অন্তর প্রতিবেদন প্রকাশ করে ফাও। সংস্থাটির প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, মার্চ মাস শেষে খাদ্য শস্য সূচকের অবস্থান দাড়িয়েছে ২০৫ দশমিক ৮ পয়েন্টে। ফেব্রুয়ারিতে এই সূচক ছিল ১৯৫ দশমিক ৮ পয়েন্টে।

ফাও  জানায়, ফেব্রুয়ারি মাস থেকে মার্চ মাসে ভোজ্য তেলের সূচক বেড়েছে ৭ পয়েন্ট। ১৮ মাসের মধ্যে এই খাদ্যে সবচেয়ে বেশি সূচক বেড়েছে।

সংস্থাটির প্রতিবেদন অনুযায়ী, জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি মাসে সূচকে চিনির অবস্থান ছিল যথাক্রমে ২২১ দশমিক ৭ এবং ২৩৫ দশমিক ৪। মার্চ মাস শেষে এই খাদ্যের দাম বেড়েছে ১৮ পয়েন্ট। ব্রাজিল ও থাইল্যান্ডে উৎপাদন অনেক কমে যাওয়ায় এবং বৈরী আবহাওয়ার  কারণে দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছে ফাও।

এদিকে মার্চ মাসে বিশ্বজুড়ে মাংসের দাম পূর্ববর্তী মাসের তুলনায়  ২ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়েছে। এর আগের মাসে তা কমেছিল বলে জানিয়েছে জাতিসংঘভিত্তিক সংস্থাটি। তবে ওই  মাসে দুগ্ধ জাতীয় খাবারের দাম ৬ দশমিক ৯ পয়েন্ট কমে ২৭৫ দশমিক ৪ থেকে ২৬৮ দশমিক ৫ শতাংশে এসে ঠেকেছে বলে জানিয়েছে ফাও।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বিশ্বজুড়ে খাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ার পেছনে যতগুলি কারন আছে। তা খুব শিগগিরই মোকাবিলা না করতে পারলে আাগামিতে খাদ্যের দাম আরও বেড়ে যেতে পারে বলে আশংকা করছেন তারা।

এস রহমান/