অনুসন্ধানের চাকা এবার ব্লাক বক্সের দ্বিতীয় ‘সংকেতে’

0
68

missed airব্লাক বক্স খুঁজতে দক্ষিণ ভারত সাগরে ‘পিঙ্গার’ নামানোর পর শনিবার চীনা অনুসন্ধানকারী জাহাজ প্রথম বারের মতো তরঙ্গ সংকেত পেয়েছে। যেটি ছিল তাদের  অনুসন্ধানের ২ মাইলের মধ্যে। এবার তারা দ্বিতীয়বারের মতো রোববার তরঙ্গ সংকেতের আভাস পেয়েছে। যা ২ মাইলের নিচে ১.২ মাইলের কাছাকাছি বলে জানিয়েছে নিখোঁজ মালয়েশিয়ান বিমানের তল্লাশি অভিযানে থাকা চিনা অনুসন্ধানকারী দল ।

এদিকে দ্বিতীয় সংকেত পাওয়ার পর ওই সংকেতের দিকে অনুসন্ধানের মোড় ঘুরিয়েছে অনুসন্ধানকারীরা। রোববার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চীনা গণমাধ্যম জিনহুয়াতে বলা হয়, শনিবারের সংকেতটির ফ্রিকোয়েন্সি ছিল ৩৭ দশমিক পাঁচ কিলোহার্জ যা ফ্লাইট রেকর্ড থেকে পাওয়া ফ্রিকোয়েন্সির মতোই। তবে সংকেতটি প্রায় একমাস আগে নিখোঁজ এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটের ব্ল্যাক বক্সের কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে এই  বিশেষ ‘তরঙ্গ সংকেত’ এর সঙ্গে বিমানের ব্ল্যাক বক্সের যোগসূত্র থাকার আশা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এছাড়া চীনের বিমানগুলো দক্ষিণ ভারত মহাসাগরের তল্লাশি এলাকায় বেশ কিছু ভাসমান বস্তু দেখেছে বলেও জানিয়েছে। নিখোঁজ মালয়েশিয়ান বিমানের তল্লাশির জন্য গঠন করা অস্ট্রেলিয়ান বিশেষজ্ঞ দলটি ওই সংকেত খতিয়ে দেখছে।

উল্লেখ্য,  বোয়িং ৭৭৭ নামে বিমানটি চীনের উদ্দেশে ৮ মার্চ শনিবার স্থানীয় সময় ২টা ৪০ মিনিটে কুয়ালালামপুর থেকে ছেড়ে যায়। কিন্ত ১০টা ৩০ মিনিটে এটি বেইজিং-এ পৌঁছানোর কথা থাকলেও  পৌঁছায়নি। ভিয়েতনামী সরকারের ওয়েবসাইটে জানানো হয়, দক্ষিণ ভিয়েতনামের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় বিমানটির রাডার বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের জানায়, নিখোঁজ হওয়ার পর থেকেই অভিযান চালাচ্ছে তারা। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিধ্বস্ত বিমানের কোন ‘চিহ্ন’ খুঁজে পাওয়া যায়নি। অনেকসময় অনুসন্ধানকারীদের কাছ থেকে বিভিন্ন আশার বাণী শুনলেও শেষ পর্যন্ত সব আশা ফিঁকে হয়ে গেছে। ৫ জন শিশুসহ ২২৭ জন যাত্রী, এবং ১২ জন ক্রু নিয়ে বিমানটি যাত্রা শুরু করেছিল।

এস রহমান/