পোশাক কারখানার নিরাপত্তায় ৮ মিলিয়ন ডলার দেবে কানাডা
সোমবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

পোশাক কারখানার নিরাপত্তায় ৮ মিলিয়ন ডলার দেবে কানাডা

garmentsপোশাক কারখানায় শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কারাখানা পরিদর্শন বাবাদ অর্থ সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কানাডা। গতকাল বৃহস্পতিবার কানাডার কেন্দ্রীয় সরকার আগামি চার বছরের জন্য এ ব্যাপারে ৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসহায়তার দেওয়ার ঘোষণা দেন । খবর দি গ্লোব এ্যান্ড মেইলের ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের পোষাক কারখানা থেকে কানাডার পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্টানগুলো প্রচুর পরিমানে পোষাকজাত দ্রব্য আমদানি করে । সম্প্রতি বাংলাদেশে তাজরীন পোশাক কারখানা আগুন, চলতি বছরের শুরুর দিকে রানা প্লাজা ধ্বসে ১১২৯ জন শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বাংলাদেশের পোষাকখাত অনেকটা নাজুক, বিপর্যস্ত । তাই খুব দ্রুত এ অবস্থার উত্তরণ দরকার ।

কারখানা পরিদর্শন, কর্মপরিবেশ উন্নয়ন এবং শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য যাতে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) বাংলাদেশ সরকারকে  এই খাতে প্রকৌশলগত সহায়তা দিতে পারে, সে জন্যই এ অর্থসহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে দেশটির এক সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কানাডার একজন সরকারী কর্মকর্তা জানান, কারখানার নিরাপত্তাব্যবস্থা উন্নয়নের সাথে বাংলাদেশের পোশাক খাতে কাজের অবস্থার উন্নতি করা জরুরি । তবে তা করা একটু জটিল এবং বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ বলেও মনে করেন তিনি ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের পোশাক শিল্পে অগ্নি এবং ভবন নিরাপত্তায় কানাডার বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রয়োজনে পৃথক ভাবে কাজ চালিয়ে যাবে ।

ইতোমধ্যে লবলো কোম্পানি লিমিটেড এ ব্যাপারে অর্থ সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছে।

পোষাক খাতের নিরাপত্তায় বর্তমানে ভবন গুলো পরিদর্শন করে যা যা দরকার হবে তার জন্য অর্থ দিবে বলে জানিয়েছে তারা ।এর সাথে আরো যে কোম্পানিগুলো কাজ করেবে তা হলো হুডসন বে করপোরেশন, কানাডিয়ান টায়ার, ওয়ালমার্ট কানাডা এবং জায়ান্ট টাইগার ।ৱ

কিন্তু এই প্রকল্প চুক্তি অনেকটা দুর্বল বলে মন্তব্য করা হয় । এক সমালোচনায় কানাডার সরকারি কর্মকর্তা আরো জানান, বাংলাদেশে পোশাক কারখানাগুলো পরিদর্শন করতে অর্থসহায়তা দেওয়ার চেয়ে কানাডার সরাসরি এই সকল কারখানার কাজের অবস্থা এবং শ্রমিকদের নিরাপত্তার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, সবচেয়ে ভালো হত যদি বাংলাদেশ সরকার আজ বলতো, আপনারা যদি বাংলাদেশে পোশাক খাত থেকে কিছু পেতে চান, তাহলে এই শিল্পের সংকট উত্তরণে আপনাদের কে আগে এগিয়ে আসতে হবে।

দেশটির প্রধান শ্রম ফেডারেশনের প্রধান জিম সিনক্লেইর জানান, কানাডার কোম্পানিগুলো যা করছে তা বেশি কিছু নয় ।বরং তারা প্রধান কাজকে এড়িয়ে যাচ্ছে ।

ওয়াশিংটন ভিত্তিক শ্রমিক অধিকার সমিতির নির্বাহি পরিচালক স্কট নোভা জানান, যেহেতু চলতি বছরের শুরুর দিকে রানা প্লাজা ধ্বসে এক হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে সেহেতু এখন দুই বিষয়ের দিকে নজর দিতে হবে ।

তিনি জানান, কানাডা সরকারের এই অর্থ চুক্তি ইতিবাচক। তবে তারা এর চেয়ে বেশি কিছু করতে পারতো।

এই বিভাগের আরো সংবাদ