টি-২০ বিশ্বকাপে এশীয়দের ফাইনাল কাল

0
63
টি-২০

indexপ্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের পূর্ণাঙ্গ ও একক আয়োজক হিসেবে একটি মিশন সফলভাবে শেষ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। হোক তা স্বল্প মাত্রার ফরমেট, উত্তেজনার কোনো কমতি তো নে-ই, বরং ক্রিকেট দুনিয়ার অন্যান্য সংস্করণের থেকে টি-টোয়েন্টির ৪০ ওভারে অনেক বেশিই আনন্দিত হন ক্রিড়ামোদীরা। আর খেলোয়াড়রা অনেক বেশি নন্দিত হন। চার-ছক্কার তালে তালে নেচে ওঠে পুরো গ্যালারি।

বিশেষ করে এশীয়দের মধ্যে ক্রিকেট জনপ্রিয়তা বোধ হয় সবচেয়ে বেশি। বলা যায় দক্ষিণ এশিয়ায়। আর এই অঞ্চলেরই দুই শক্তিধর দেশ মুখোমুখি হবে ফাইনালে।

যদিও স্বাগতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের টিম টাইগার্স খুব একটা চার-ছক্কার বাহারি কারিকুরি দেখাতে পারেনি ভক্তদের। বরং এর পরিবর্তে উপর্যুপুরি লজ্জাকর হারের মধ্য দিয়ে সুপার দশেই বিদায় নিয়েছে মুশফিক বাহিনী।

তারপরও উত্তেজনার পারদ যে অনেক ওপরেই উঠে আছে তার আঁচ পাওয়া গেছে ইতোমধ্যেই। খেলা দেখার জন্য অনেকেই আগ্রহী হলেও পাচ্ছেন না টিকেট। ভারত-শ্রীলঙ্কার নিয়মিত দর্শক ছাড়াও আছে বাংলাদেশের সমর্থকরা। বাংলাদেশের অনেকেই ভারতের নিয়মিত সমর্থক। তবে অ্যান্টি-ইন্ডিয়া থেরাপিতে কিছু বাড়তি দর্শক থাকবে মাহেলা-সাঙ্গাকারাদের।

মিরপুরের কন্ডিশনে স্পিন জাদুই ম্যাচ জেতার ট্রাম কার্ড। সেদিক থেকে ঘূর্ণি জাদুকরদের যথেষ্ট দাপট আছে দুই শিবিরেই। রঙ্গনা হেরাথ, অমিত মিশ্র বা রবিচন্দ্রন অশ্বিন- যে কারও ঘূর্ণিতেই স্বপ্নভঙ্গ হতে পারে প্রতিপক্ষের। তবে এসব মোকাবেলা করার জন্য দুই দলেই রয়েছেন পাকা ব্যাটসম্যানও।

বাংলাদেশ আসরের এই বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত কেউই পরাস্ত করতে পারেনি কোহলি-শর্মাদের। প্রতিপক্ষকে অনেক পেছনে রেখেই প্রতিটি ম্যাচে জয় লাভ করেছে ধোনির দল। সেই হিসেবে মোস্ট ফেভারিটের তকমা সেঁটে আছে তাদের গায়েই। তবে গত আসরের রানার্স আপ শ্রীলঙ্কাও কম নয় কোনো দিক থেকে। লঙ্কানদের গায়েও লাগানো আছে ‘ওয়েল ব্যালান্সড’ এর তকমা।

তাই অল এশিয়দের এই ফাইনালে কারা জিতবে মুকুট তাই দেখার জন্য বাংলাদেশের দিকে তাকিয়ে আছে বিশ্ববাসী। শ্রীলঙ্কা কি গতবারের বেদনা ভুলতে পারবে নাকি ভারত অপরিজত থেকেই শেষ করবে বিশ্বকাপ মিশন- এই প্রশ্নের উত্তর জানতে অপেক্ষা করতে হবে আগামিকাল পর্যন্ত।