সৌদিতে অভিবাসী শ্রমিকদের সুরক্ষা বাড়ছে

0
55
ছবি সংগৃহীত

expat_saudi_3সৌদির বেসরকারি কোম্পানিগুলোকে আগামি মাস থেকে তাদের কর্মীদের বাধ্যতামূলক চিকিৎসা ভাতা দিতে হবে। এ- লক্ষ্যে শ্রমিক ও তাদের পরিবারের জন্য চিকিৎসা বীমার ব্যবস্থা করতে জোর তাগিদ দিচ্ছে সরকার। শনিবার দেশটির স্বাস্থ্য বীমা কাউন্সিলের এক সিদ্ধান্তে এমন তথ্য জানানো হয়েছে। খবর  আরবনিউজের।

সৌদির স্বাস্থ্য বীমা কাউন্সিল বলছে, শুধু দেশের নাগরিকরাই চিকিৎসা বাবদ ভাতা পাবে, এটা হতে পারে না। তাই স্থানীয় নাগরিকদের সাথে যাতে দেশটিতে কর্মরত বিদেশি শ্রমিকরাও এই সুবিধা পায় সে ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে যেসব সৌদি নারী বিদেশী কোনো পুরুষ বিয়ে করবে অথবা বিদেশী কোনো দম্পতি তাদের ছেলে মেয়েদের জন্য এই সুবিধার জন্য আবেদন করতে পারবেন না বলে কাউন্সিলের বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

একজন উর্ধ্বতন বিমা বিশেষজ্ঞ জানান, আমরা সব সৌদি কর্মীদের জন্য চিকিৎসা ভাতা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানায়। তিনি বলছেন, বর্তমানে সৌদিতে যেভাবে ঘরভাড়াসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে তাতে স্বাস্থ্য সেবা তো দূরের কথা,  শ্রমিকরা তাদের মৌল মানবিক চাহিদা পূরণ করতে হিমশিম খাচ্ছে।  তাই কর্মী প্রতি চিকিৎসা ভাতা ২৫ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ শতাংশ করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

কাউন্সিলের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশি শ্রমিকসহ অন্যান্য প্রবাসী শ্রমিক ও স্থানীয়রা বলছেন, এটি সরকারের একটি ভালো উদ্যোগ। তবে আগে থেকেই এমন ব্যবস্থা নিলে তা শ্রমিকদের  জন্য অনেক ভালো হতো বলে মনে করেন তারা।

উল্লেখ্য,  প্রায় ২০ লাখ সৌদি কর্মী এই চিকিৎসা ভাতা পান। নতুন উদ্যোগ নেওয়ার পর এখন থেকে বিদেশিরাও এই সুযোগ পাবেন।