ফার কেমিক্যালের আইপিও’র লটারি ১০ এপ্রিল

0
65
Farr_Chemical_Logo
ফার কেমিক্যাল লোগো

Farr Chemical ipo lotteryফার কেমিক্যালের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) লটারি আগামি ১০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হতে পারে। সম্ভাব্য এ সময়সূচি ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে কোম্পানটি। তবে নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমতির পরিপ্রেক্ষিতে লটারি ৩ দিন পিছিয়ে ১৩ তারিখও হতে পারে। ইতোমধ্য ফার কেমিক্যাল কর্তৃপক্ষ  পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছে।  তাই দুদিনের যে কোনো এক দিন ওই লটারি অনুষ্ঠিত হওয়ার উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে, লটারিতে কৃতকার্যরা শেয়ার বরাদ্দ পাবেন। বাকীরা সাত কর্মদিবসের মধ্যে পেয়ে যাবেন জমা দেওয়া অর্থ। অনলাইন ব্যাংক একাউন্ট হলে সরাসরি আবেদনকারী হিসেবে টাকা জমা হয়ে যাবে। অন্যান্য একাউন্টের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীকে দেওয়া হবে রিফান্ড ওয়ারেন্ট, যা ব্যাংকে জমা দিয়ে নগদায়ন করা যাবে।

এদিকে এখনও কোম্পানির আইপিওতে জমা পড়া আবেদনপত্র প্রক্রিয়াজাত হচ্ছে। কোম্পানিটির আইপিওতে প্রায় ৭৪ গুণ আবেদন জমা পড়েছে বলে জানা গেছে।

কোম্পানিটি ১ কোটি  ২০ লাখ শেয়ার ইস্যুর জন্য আবেদন করেছিল। এর মাধ্যমে সংগ্রহ করার কথা ১২ কোটি টাকা। কিন্তু আবেদন জমা পড়ে ৮৮৮ কোটি টাকার বেশি। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারী, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারী ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোর কাছ থেকে আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ৮৫৮ কোটি টাকার। আর প্রবাসি বিনিয়োগকারীরা জমা দিয়েছেন প্রায় ৩০ কোটি টাকা।

এর আগে থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত আবেদন জমা নেওয়া হয়। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এ সুযোগ ছিল ২৫ মার্চ পর্যন্ত। এর আগে বিএসইসির ৫০৬ তম সভায় আইপিওর অনুমোদন দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা ইপিজেডে (রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা) অবস্থিত এ কোম্পানি বস্ত্রখাতের জন্য প্রয়োজনীয় নানা রাসায়নিক উৎপাদন করে থাকে। এ কোম্পানির উদ্যোক্তাদের মালিকানাধীন আরও দুটি কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত। আরএন স্পিনিং ও ফ্যামিলি টেক্স নামের কোম্পানি দুটি নানা কেলেঙ্কারির জন্ম দিলেও ফার কেমিক্যালের আইপিওতে তার কোনো প্রভাবই পড়েনি।

জিইউ