গণজাগরনের প্রতিবাদ সভায় পুলিশের হামলা

0
65

Gono_monche_petoniশাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের প্রতিবাদ সভায় দফায় দফায়  হামলা চালিয়েছে পুলিশ। এসময়  সংগঠনটির ৬ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশের লাঠিপেটায় আহত হয়েছেন মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারসহ বেশ কয়েকজন।

‘সমাবেশ করার অনুমতি না থাকায় পুলিশ এই ব্যবস্থা গ্রহন করেছে’-সাংবাদিকদের এমনটাই জানালেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম

তিনি জানান, “মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড নামের একটি সংগঠন ও গণজাগরণ মঞ্চ শুক্রবার একই স্থানে সমাবেশের অনুমতি  চাইলে কোনো দলকেই অনুমতি দেওয়া হয়নি”।

আটক হওয়া কর্মীরা হচ্ছেন- গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী সোহাগ, ধীমান, টিটো, জয় ও ফরিদ আহমেদ। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় সভাপতি মেহেদি হাসান, কর্মী পারভেজ আলম ইমন।

আহতদের মধ্যে একজনকে আটক করে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।শুক্রবার বিকেলে পুলিশের সাথে মঞ্চের কর্মীদের সংঘর্ষ বেধে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলায় আহত হন গণজাগরণ মঞ্চের কয়েকজন কর্মী। এর প্রতিবাদেরই মূলত শুক্রবার বিকেলে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয় মঞ্চ। চারটায় সমাবেশ করার কথা থাকলেও সাড়ে তিনটা থেকেই জড়ো হতে শুরু মঞ্চের নেতা-কর্মীরা। এসময় পুলিশের নিষেধ উপেক্ষা করে সমবেত হয় তারা।

পরে পুলিশ সাঁজোয়া যান নিয়ে এসে তাদেরকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে সমাবেশে বাধা দিলে পুলিশ-মঞ্চ দুই পক্ষ মারমুখী হয়ে ওঠে। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অভিযান চালায় পুলিশ।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা।  পুলিশের সহযোগিতায় ছাত্রলীগ ওই হামলা চালিয়েছে এমন অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার।

বৃহস্পতিবার ঘটনার পর শাহবাগ থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা করেছে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ও গণজাগরণ মঞ্চ।