ঝুঁকিতে পেপার, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাত

0
48
P.E-ratio
পিই রেশিও

P.E-ratioদেশের পুঁজিবাজারে পেপার এখন সবচেয়ে ঝুঁকপূর্ণ খাত। এ খাতটির মূল্য-আয় অনুপাত বা পিই রেশিও সবচেয়ে বেশি। তার পর রয়েছে বিবিধ ও খাদ্য খাত।

বর্তমানে পেপার খাতের মূল্য-আয় অনুপাত ৮২ দশমিক ৪। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বিবিধ খাতের মূল্য-আয় অনুপাত ৪৩। খাদ্য খাতের শেয়ারের মূল্য-আয় অনুপাত ৩৮ দশমিক ৬।

উল্লেখ, মূল্য-আয় অনুপাত হচ্ছে একটি শেয়ারের আয় ও তার বাজার মূল্যের অনুপাত। বাজার মূল্যকে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) দিয়ে ভাগ করলে এ অনুপাত পাওয়া যায়। একটি শেয়ারের মূল্য-আয় যত কম হয় বিনিয়োগের জন্য সেটি তত কম ঝুঁকিপূর্ণ। মূল্য-আয় অনুপাত বাড়লে ঝুঁকিও বাড়ে। সাধারণভাবে এ অনুপাত ২০ এর নিচে থাকলে ওই শেয়ারকে বিনিয়োগযোগ্য মনে করা হয়।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্য অনুসারে, বর্তমানে২০ টি খাতের মধ্যে ১১ টির মূল্য-আয় অনুপাত ২০ বা তার বেশি। আলোচিত খাতটি ছাড়া বাকী খাতগুলোর মধ্যে সিরামিকসের মূল্য-আয় অনুপাত ২৮ দশমিক ৮, সেবা খাতে ২৬ দশমিক ৫ ওষুধ খাতে ২৫ দশমিক ৪, প্রকৌশলে ২৩ দশমিক ৯, ভ্রমণে ২৩ দশমিক ৫, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তির ২২ করে এবং সিমেন্টের ২০ দশমিক ৫ । আর ২০ ছুঁইছুঁই করছে ট্যানারি (১৯ দশমিক ৩) এবং এনবিএফআই (১৯)।

এখনও বাজারে ব্যাংক খাতের মূল্য-আয় অনুপাতই সবচেয়ে কম। বর্তমানে এ খাতের গড় মূল্য-আয় অনুপাত ১০ দশমিক ৩। এর পর আছে জ্বালানী-বিদ্যুত (১৩ দশমিক ১০), সাধারণ বিমা (১৬ দশমিক ১)এবং টেক্সটাইল (১৬ দশমিক ৭)।

জিইউ/এআর