নির্বাচনে আ.লীগের পরাজয়ে চলছে ব্যাপক সমালোচনা

0
52
dinajpur

দিনাজপুরদিনাজপুরে উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের বিজয় ও আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে। বিরল উপজেলা আ.লীগের ঘাঁটি হওয়ার পরও পরাজয়ের কারণে নেতাদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা চলছে।

১৯ দলীয় সমর্থিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ-মহিলা প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে আ.লীগ সমর্থিত প্যানেলকে পরাজিত করে। উপজেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ এ.কে.এম আফজালুল আনাম সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৭৬.২৯ ভাগ।

বিরল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৯ দলীয় সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ন.ম বজলুর রশিদ (মটর সাইকেল) ৫৩ হাজার ১৫৪ ভোট ও ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) প্রার্থী জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ এ.কে.এম আফজালুল আনাম (মাইক) ৭৫ হাজার ৬৪৬ ভোট এবং ১০ নং রানীপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য বিএনপির সাবেক নেত্রী ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) প্রার্থী ফিরোজা বেগম (পদ্মফুল) ৬৪ হাজার ২২৯ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

আ.লীগ সমর্থিত পরাজিত প্রার্থীরা হলেন- চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মানবেন্দ্র , ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুশ) পদে উপজেলা আ.লীগের সদস্য এম.এ কুদ্দুস সরকার এবং ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে উপজেলা মহিলা আ.লীগের নেত্রী উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা আরজুমান্দ বানু ।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের ভরাডুবি হওয়ায় স্থানীয় নেতাদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা চলছে। সেই সাথে ভরাডুবি হওয়ার কারণ খুঁজছেন তারা।

বিরল উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ইসহাক আলী সরকার জানান, জনগণ চায়নি তাই আ.লীগের সমর্থিত প্রার্থীরা জয়ী হতে পারেনি। তবে দলীয় কোনো কোন্দল নেই।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার তকদির আলী জানান, এ উপজেলায় ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় মোট ভোটার ছিল ১ লাখ ৬৯ হাজার ৫২২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮৫ হাজার ৫৩১ জন এবং মহিলা ভোটার ৮৩ হাজার ৯৯১ জন। ৭৬.২৯ ভাগ ভোট গ্রহণ করা হয়েছে।

কেএফ