তারেক জিয়াকে ক্ষমা চাইতে হবে; মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধারা

0
130
_tarek

_tarekযুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা বলেছেন, জিয়াউর রহমানকে প্রথম রাষ্ট্রপতি দাবি করায় তারেক জিয়াকে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। এক মাসের মধ্যে ক্ষমা না চাইলে আন্দোলনের ডাক দেবে তারা।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আয়োজিত ‘জিয়াউর রহমান প্রথম রাষ্ট্রপতি তত্ত্বটি সত্য নয়, অসত্য। মূর্খ মায়ের মূর্খ সন্তান’ র্শীষক মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধারা এসব কথা বলেন।

মানববন্ধনে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ঢাকা জেলা ইউনিট কমান্ডার আলহাজ্ব আমির হোসেন মোল্লা বলেন, ‘জিয়া ৭ম রাষ্ট্রপতি’ একথা তারেক জিয়াকে  মেনে নিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, যদি তারেক জিয়া এক মাসের মধ্যে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা না চায়, তাহলে দেশব্যাপী কঠিন আন্দোলন সংগ্রাম পালন করা হবে।

৪৩ বছর পরে জিয়া প্রথম রাষ্ট্রপতি বলায় তারেক জিয়াকে ধিক্কার জানান তিনি।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, যেহেতু ৭১- এ শেখ মুজিবের কথা শুনে বাঙ্গালীরা খাজনা, ট্যাক্সা, স্কুল ও কলেজের সব কিছু বন্ধ করে দিয়েছিল। তাই আমরা বলতে পারি শেখ মুজিবই প্রথম রাষ্ট্রপতি। তারা বলেন, জিয়া স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠ করেছেন, তিনি ঘোষক না।

জিয়ার কথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, তিনি ছিলেন একজন সৈনিক। সরকারি চাকরিজীবী, তিনি কোন নেতা ছিলেন না।

রাষ্ট্রপতি জিয়ার শাসন আমলের কথা উল্লেখ করে বক্তারা আরও বলেন, তিনি তার আমলে কুখ্যাত রাজাকার শাহ আজিজকে প্রধানমন্ত্রী করেন। এরপর তিনি জয়পুর হাটের রাজাকার আবদুল আলীমকে রেলমন্ত্রী বানায় এবং রাজাকার মাওলানা মানানকে ধর্মমন্ত্রী করে।

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ঢাকা জেলা ইউনিট কমান্ডার আলহাজ্ব আমির হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- ডেপুটি জেলা কমান্ডার লুতফুর রহমান, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মো. মামুন, আবদুল লতিফ, মো. জুলফিকার, মো. মাজেদ, মো. হানিফ সরকার প্রমুখ।

জেইউ/কেএফ