হারিয়ে যাচ্ছে ইউরোপের ভ্রমর

0
338

Bumblebee‘ভ্রমর কইয়ো গিয়া, শ্রীকৃষ্ণ বিচ্ছেদের অনলে অঙ্গ যায় জ্বলিয়া রে, ভ্রমর কইয়ো গিয়া’- সিলেটের মরমী কবি রাধারমন দত্তের একটি অসাধারণ গান। প্রায় সবার কাছেই সমাদৃত জনপ্রিয় এ  গানটি। শুধু গান নয় অনেক কবি সাহিত্যিকরাও এই ভ্রমরকে নিয়ে লিখেছে নানা কবিতা, রচনা করেছে নানা সাহিত্য।

তবে কেবল সাহিত্যে না ভ্রমরের অবদান আছে অর্থনীতিতেও, আছে প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায়ও। কিন্তু প্রকৃতিতে অনুকূল পরিবেশ দিন দিন সংকুচিত হওয়ায় ফসলের পরাগায়নে সাহায্য করা  উপকারী এ বন্ধুটি আজ বিলীন হওয়ার পথে।

ইউরোপের গবেষকদের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপের প্রায় এক চতুর্থাংশ ভ্রমর বিলুপ্তির ঝুকিঁর মুখে রয়েছে।

‘রেড লিস্ট অব দ্য ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনভারসেশন অব নেচার’ (আইইউসিএন) এর মতে, ইউরোপের ৬৮ টি প্রজাতির ভ্রমরের মধ্যে প্রায় ১৬ টি প্রজাতিই হুমকির মুখে। আবার ব্রিটেনের  ২৬ টি প্রজাতির মধ্যে ১২ প্রজাতিই বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ৬ টি প্রজাতির সংখ্যা এখনও স্থিতিশীল।

আইইউসিএন আরও জানায়, ইউরোপের খাদ্যশস্যের পরাগায়নকারী গুরুত্বপূর্ণ ৫ প্রজাতির পতঙ্গের মধ্যে ৩ প্রজাতিই হল ভ্রমর। আর এর কারণেই প্রতি বছর ইউরোপের অর্থনীতিতে যোগ হয় ১৮০০ কোটি পাউন্ড।

গবেষকরা জানিয়েছেন তৃণভূমিতে বন্য ফুল ধ্বংস করে ফেলাসহ বিভিন্ন পোকামাকড়ের হাত থেকে শস্য বাঁচাতে ব্যবহৃত কীটনাশক এর বিলুপ্তির জন্য দায়ী। আইইউসিএন জানিয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই বিলুপ্ত হচ্ছে ভ্রমর।

তবে আশার কথা ইউরোপীয়ন ইউনিয়নের পরিবেশবিষয়ক কমিশনার জানেজ পটোকনিক বলছেন, ভ্রমরের বিলুপ্তির ঝুকিঁ কমানোর জন্য ইউরোপীয়ন ইতোমধ্যে কীটনাশক ব্যবহার নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। সংস্থাটি এর অন্তর্ভুক্ত ২৮ টি দেশ ভ্রমরদের রক্ষা করার জন্য ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে।